অপরাধ খুলনা

সুন্দরবনে ২ দস্যু আটক, ৪ জিম্মি সহ আগ্নেয়াস্ত্র ও গুলি উদ্ধার

 শাখী হালদার ,atok_0মংলা:  সুন্দরবনের বাটুলিয়া নদীর হাতভাঙ্গা ভারানী খালে কোস্ট গার্ড ও বনদস্যু রেজাউল ওরফে শীর্ষ বাহিনীর মধ্যে বন্দুক যুদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। ৬ ঘন্টা ধরে চলা বন্দুক যুদ্ধের এক পর্যায়ে ঘটনাস্থল থেকে ২ বনদস্যুকে আটক ও ৫টি আগ্নেয়াস্ত্র, ২শ ৭ রাউন্ড গুলি, ১টি নৌকা, ৪টি ধারালো অস্ত্রসহ ৪ জিম্মিকে উদ্ধার করে কোস্ট গার্ড।

কোস্ট গার্ড পশ্চিম জোনের (মংলা) অপারেশন কর্মকর্তা কমান্ডার মুফতি মাহমুদ জানান, মুক্তিপণের দাবীতে অপহৃত জেলেদের নিয়ে বনদস্যু শীর্ষ বাহিনী বনের ভারানী খালে অবস্থান করছে খবর পেয়ে কোস্ট গার্ড সদস্যরা শনিবার গভীর রাতে ওই এলাকায় অভিযান চালায়। কোস্ট গার্ড ওই এলাকায় পৌছালে দস্যুরা অভিযানকারীদের দেখা মাত্র গুলি চালালে কোস্ট গার্ড পাল্টা গুলি ছুড়ে। রাত ২ টা থেকে উভয়ের মধ্যে শুরু হওয়া বন্দুক যুদ্ধ শনিবার সকাল ৮ পর্যন্ত চলে। পরে দস্যুরা বনের গহীনে পালিয়ে যাওয়া সময় ঘটনাস্থল থেকে বনদস্যু রবিউল ও মনিরকে আটক করে কোস্ট গার্ড। এ সময় দস্যুদের ব্যবহৃত ৩টি একনালা বন্দুক, ১টি শটগান, ১টি পাইপগান, ৭ রাউন্ড বন্দুকের গুলি, ২শ রাউন্ড এয়ারগানের গুলি, ১টি নৌকা, ৪টি ধারালো অস্ত্রসহ ৪ জিম্মি সাহেব আলী, আ: রহমান, মফিজুল ইসলাম ও আমিরুল ইসলাম উদ্ধার করা হয়। উদ্ধার হওয়া জেলেদের বাড়ী খুলনার কয়রার গোলখালী এলাকায়। এদিকে শরণখোলা জাতীয় মৎস্যজীবি সমিতির সাধারণ সম্পাদক মজিবুর রহমান জানান, মুক্তিপণের দাবীতে গত রাতে বঙ্গোপসাগরের নারকেলবাড়িয়া এলাকা হতে রায়েন্দার মুন্না-২ সহ ৩টি ট্রলার ও ১০ জেলেকে অপরহণ করে বনদস্যু শীর্ষ বাহিনী।

এর আগে গত বুধবার রাতে বঙ্গোপসাগরের ১ নম্বর ফেয়ারওয়ে বয়া এলাকায় গণডাকাতি চালিয়ে মুক্তিপণের দাবীতে অন্তত ৪০ জেলেকে অপহরণ করে বনদস্যু জাহাঙ্গীর বাহিনী।