অপরাধ ঢাকা ধর্ম

সন্ত্রাসীদের চাঁদা না দেয়ায় দুই মাস ধরে মসজিদ-মাদ্রসায় তালা

মিয়া মোঃ নোমান, টাঙ্গাইল: সন্ত্রাসীদের দাবিকৃত চাঁদা না দেয়ায় মসজিদimage_24782 ও মাদ্রাসায় তালা ঝুলে রয়েছে গত দুই মাস ধরে। সেখানে নামাজ পড়া ও মাদ্রাসার প্রায় দেড়শ শিক্ষার্থীর লেখাপড়া বন্ধ রয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার বানাইল ইউনিয়নের দেওড়া গ্রামে। সন্ত্রাসীদের ভয়ে সেখানে তারা ঈদের নামাজও আদায় করতে পারেনি। এ বিষয়ে গত ১১ জুলাই প্রতিষ্ঠাতা রফিকুল ইসলাম খান টাঙ্গাইল পুলিশ সুপারের কাছে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন বলে জানা গেছে। মির্জাপুর থানা ও টাঙ্গাইলের আদালতে দায়ের করা মামলার সূত্র এবং এলাকাবাসী জানান, ওই গ্রামের আনছার আলী খানের ছেলে আলহাজ রফিকুল ইসলাম খান ও তার ছোট ভাই জহিরুল ইসলাম খান মিলে গ্রামে প্রায় সাড়ে ১০ একর জমিতে পুকুর খনন করে মৎস্য খামার ও পুকুর সংলগ্ন জায়গায় একটি গরুর খামার গড়ে তোলেন। কয়েকেদিন আগে ওই খামারের গরুর জন্য ট্রাকযোগে খাবার আনার সময় এলাকার নুরুল হক (৩০), বানাইল ইউ পি সদস্য মোঃ সেলিম খান (৩৫) ও শামসুল মিয়া (৪০) সহ কয়েকজন চিহ্নিত সন্ত্রাসী দুই লাখ টাকা চাঁদার দাবিতে জহিরুল ইসলামসহ কয়েকজনকে মারধোর করে ট্রাকসহ আটকিয়ে রাখে। খবর পেয়ে মির্জাপুর থানা পুলিশ তাদের ট্রাকসহ উদ্ধার করে।এদিকে পুলিশের সহায়তায় তারা রেহাই পেলে সন্ত্রাসীরা আরও ক্ষিপ্ত হয়ে রফিকুলের কাছে পুনরায় ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবি করে। অন্যথায় খামার বন্ধ করে দেয়া হবে বলে হুমকি দেয়। কিন্তু সে চাঁদা দিতে অস্বীকৃতি জানালে গত ১৪ জুন সন্ধার পর সন্ত্রাসীরা মৎস্য খামারে হানা দিয়ে পরদিন ভোর পর্যন্ত পুকুর থেকে মাছ ধরে প্রায় দুই লাখ টাকার মাছ নিয়ে যায়। এ সময় তারা বিষ দিলে পুকুরে থাকা মাছ মারা যায়। মৃত মাছের মূল্য প্রায় ২০ লাখ টাকা হবে বলে রফিকুল ইসলাম জানিয়েছেন। এ ঘটনায় তিনি ও তার ভাই টাঙ্গাইলের জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে পৃথক মামলা করেছেন। রফিকুল ইসলামের দায়ের করা মামলাটি বিজ্ঞ ম্যাজিস্ট্রেট এজাহার হিসেবে নিয়ে ব্যবস্থা নেয়ার জন্য মির্জাপুর থানায় পাঠালে পুলিশ গত ২৮ জুন মামলাটি তালিকাভুক্ত করলেও এখন পর্যন্ত কোন আসামী গ্রেপ্তার হয়নি।অপরদিকে সন্ত্রাসীরা দেওড়া এলাকায় তাদের আর্থিক সহায়তায় প্রতিষ্ঠিত মসজিদে তালা ঝুলিয়ে দেয়ায় গত দুই মাস ধরে সেখানে নামাজ পড়া বন্ধ রয়েছে। এছাড়া মাদ্রাসা বন্ধ করে দয়াতে মাদ্রাসার প্রায় দেড়শ শিক্ষার্থী লেখাপড়া সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে বলে জানা গেছে। বানাইল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ ফারুক হোসেন বলেন, রফিকুল ইসলাম আর্থিক ভাবে খুবই স্বচ্ছল ব্যাক্তি। তিনি কিংবা তার পরিবারের সদস্যরা সিএনজি চুরি করবেন বলে মনে হয় না। তাছাড়া বিষয়টি সমঝোতার জন্য দুই পক্ষের লোকজনের সাথে আলোচনা চলছে। বানাইল ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য মোঃ সেলিম খান বলেন, রফিকুলের পরিবারের সদস্যদের ঈদের নামাজ পড়তে বলা হয়েছিল কিন্তু তারা কি কারণে আসেন নি তা বোধগম্য নয়।এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানার উপ-পরিদর্শক ( এস আই) শ্যামল কুমার বলেন সিএনজি চুরির ঘটনা থেকে বিরোধের সূত্রপাত। এ ঘটনায় একাধিক মামলা হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।