সারাদেশ

কম দামে ইলিশ বিক্রি করলেও খুশি জেলেরা

হটনিউজ ডেস্ক:

বঙ্গোপসাগরে জেলেদের জালে ধরা পড়ছে প্রচুর রূপালী ইলিশ। জেলেরা ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ নিয়ে ফিরছে দেশের বৃহত্তম মৎস্য বন্দর পটুয়াখালীর আলীপুর ও মহিপুরে। এতে দাম কমেছে ইলিশের। কম দামে ইলিশ বিক্রি করলেও খুশি জেলেরা। কারণ দীর্ঘদিন পর তাদের জালে ধরা পড়ছে প্রচুর ইলিশ। সব মিলিয়ে মৎস্য বন্দর আলীপুর ও মহিপুরের সকলের মাঝে উৎসবের আমেজ বিরাজ করছে।

গভীর রাত থেকে অন্তত একশ ট্রলার মাছ নিয়ে সাগর থেকে ফিরে আসায় ইলিশে-ইলিশে সয়লাব হয়ে যায় দক্ষিণাঞ্চলের মৎস্য বন্দরগুলো। ইলিশে সয়লাব পটুয়াখালীর হাট-বাজার। ওজন অনুযায়ী ৩৫০ থেকে ৭০০ টাকায় ইলিশের কেজি বিক্রি হচ্ছে।
আলীপুর মৎস্য বন্দর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আনছার উদ্দিন মোল্লা জানান, টানা অবরোধের পর তিন দিন আগে থেকে সাগরের মাছ ধরতে নামে জেলেরা। সাগরের যে সব পয়েন্টে ইলিশ পাওয়া যায় সেখানে জেলেরা জাল ফেললেই উঠে আসে ঝাঁকে ঝাঁকে ইলিশ। সাগর থেকে মাছ নিয়ে জেলেরা ফিরে আসায় মৎস্য বন্দরগুলোর শ্রমিকরা ব্যস্ত সময় পার করছে।

তিনি বলেন, বর্তমানে ৪০০-৫০০ গ্রাম ইলিশের মণ পাইকারি ১৪ হাজার টাকা। আর ৫০০-৬০০ গ্রাম ইলিশের দাম ১৯ হাজার টাকা। ৬০০-৯০০ গ্রাম ইলিশের মণ প্রতি ৩৫ হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। আর এক কেজি ও তার চেয়ে বড় সাইজের ইলিশের দাম মণ প্রতি পাইকারি ৫০ হাজার টাকা পর্যন্ত দাম চলছে। তবে বড় সাইজের মাছ খুবই কম ধরা পড়ছে।

জেলেরা জানান, গত বছরের তুলনায় সাগরে বর্তমানে প্রচুর ইলিশ ধরা পরছে। এ বছর সবচেয়ে বেশি ইলিশ পাওয়া যাবে সাগরে। তাই খুশি জেলেরা।

এদিকে পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী, ঢোস, মৌডুবি, জাহাজমারাসহ বেশ কয়েকটি মাছের ছোট বন্দরেও ইলিশে ইলিশে সয়লাব।
শুক্রবার সকালে পটুয়াখালী শহরের নিউ মার্কেট ও নতুন বাজার ঘুরে দেখা যায়, ৩০০-৪০০ গ্রামের প্রতি কেজি সাগরের ইলিশ ৩৫০-৪০০ টাকা, ৪০০-৫০০ গ্রামের প্রতি কেজি নদীর ইলিশ ৪৫০-৫০০ টাকায় বিক্রি হয়েছে।

ব্যবসায়ীরা জানান, আগের তুলনায় বাজারে ইলিশের দাম অনেক কম। দাম কম হওয়ায় অনেকে পাঁচ থেকে সাত কেজি ইলিশ কিনেছেন। বাজারে ইলিশ মাছের আমদানি বেড়েছে। তাই দাম কম। সামনে আরও মাছের আমদানি বাড়বে। দাম আরও কমবে।