অর্থ ও বাণিজ্য জাতীয় বরিশাল বিনোদন

হরতাল আতঙ্কে কুয়াকাটায় পর্যটকের আকাল

download (30)নিজস্ব সংবাদদাতা, কলাপাড়া, ১১ আগস্ট : ঈদের ছুটিতে এবছর কুয়াকাটায় পর্যটকের আকাল চলছে। শুধুমাত্র ঈদকে কেন্দ্র করে স্থানীয় বাসিন্দারাই কুয়াকাটা সৈকতে বেড়াতে এসেছেন। বাইরের কোন পর্যটক নেই। জামায়াতের ডাকা হরতালের আতঙ্কে কুয়াকাটায় এবছর পর্যটকের আগমন ঘটেনি। ফলে ব্যবসায়ীরা বড় ধরনের লোকসানের ধকলে পড়লেন। পর্যটকের ব্যাপক আগমন ঘটবে এমন আশায় ব্যবসায়ীরা দোকানপাট হোটেল-মোটেলে সাজগোজ করে রেখেছন। কিন্তু তাদের মাথায় যেন বাঁজ পড়েছে। বড় ধনের লোকসানের বোঝা বইতে হয়েছে কুয়াকাটার হোটেল-মোটেলসহ সব ধরনের ব্যবসায়ীদের।
অধিকাংশ হোটেল মোটেল খালি পড়ে আছে। কর্মচারীরা সবাই বেকার অপেক্ষার প্রহর গুনছেন। প্রতিবছরের মতো এবছরও পর্যটকে উপচেপড়া ভিড় থাকবে এমন আশায় প্রস্তুতি নিয়েছিলেন সকল ব্যবসায়ীরা। কিন্তু রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে কুয়াকাটার ব্যবসায়ীরা লোকসানের বড় ধরনের ধাক্কা খেয়েছে।
কুয়াকাটা ইনভেস্টর ফোরামের মূখপাত্র আলহাজ হাসনুল ইকবাল জানান, সামনে দু’দিনের হরতাল রয়েছে। ঈদের পরে মানুষের কাছে খুব বেশি টাকা পয়সা থাকেনা তার উপর বেড়াতে এসে যদি কোন ভাবে আটকে যায় সে ভয়ে মানুষ বাসা থেকে বের হতে চাচ্ছেন না।
কুয়াকাটা হোটেল মোটেল ওনার্স এ্যাসোসিয়েশনের সাধারন সম্পাদক মোতালেব শরীফ জানান, হরতাল ও রাজনৈতিক অস্থিরতার কারনে এবারে পর্যটক নেই। প্রতি বছর হোটেল মোটেল বুকিং হয়ে বাইরেও ৫-১০ হাজার পর্যটক আশ্রয় নেয়। সেখানে এবারে দু’চারজন স্থানীয় পর্যটক ছাড়া কোন বাইরের পর্যটক নেই। তিনি আরো জানান, সামনে পর্যটক মৌসুম থাকলেও রাজনৈতিক অস্থিরতা বাড়বে এমন আশংকায় আমরা পর্যটক পাবোনা। সেক্ষেত্রে বড় ধরনের লোকসান গুনতে হবে আমাদের। পর্যটন কর্পোরেশনের মোটেল ইয়থ ইন এর ব্যবস্থাপক বয়েজিদ আশরাফ জানান, যেখানে ফুল বুকিং থাকার কথা এই সময়, সেখানে ২৪০ বেডের ৭৫ ভাগ খালি পড়ে আছে। তিনিও হরতালের পাশাপাশি দুর্যোগপুর্ন আবহাওয়াকে দায়ী করলেন। মোটকথা হরতালের কারনে এবছর পর্যটনকেন্দ্র কুয়াকাটায় বেহালদশায় ব্যবসায়ীরা।