জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর রাজনীতি সারাদেশ

একটি বিশুদ্ধ পানীয় জলের উৎসের ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হবে – এল জি আর ডি মন্ত্রী

হটনিউজ ডেস্ক: স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, দেশের ১৬ কোটি মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসম্মত জীবন-যাপনের পরিবেশ নিশ্চিতে বর্তমান সরকার কাজ করছে। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বর্তমান সরকারের দুই মেয়াদে বাংলাদেশ বিশুদ্ধ পানীয় জল সরবরাহ ও স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন নিশ্চিতে উন্নয়নশীল দেশসমূহের মধ্যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। বর্তমানে দেশে প্রতি ৮৭ জনের জন্য একটি সরকারী পানির উৎস রয়েছে। আমরা ২০২১ সালের মধ্যে প্রতি ৫০ জনের জন্য একটি বিশুদ্ধ পানীয় জলের উৎসের ব্যবস্থা নিশ্চিতে কাজ করছি।

মন্ত্রী আজ ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তন চত্ত্বরে স্থানীয় সরকার বিভাগের উদ্যোগে “বিশ্ব হাত ধোয়া দিবস ২০১৮” উদযাপন উপলক্ষ্যে আয়োজিত অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব ড. জাফর আহমেদ খান-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন ইউনিসেফ, বাংলাদেশ-এর প্রতিনিধি সুমি চক্রবর্ত্তী এবং জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ সাইফুর রহমানসহ উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ও দপ্তরের প্রতিনিধিবৃন্দ।

মন্ত্রী বলেন, সরকার বিগত ১০ বছরে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলে বিশুদ্ধ পানীয় জলের উৎসের জন্য প্রায় ৩ লক্ষ হ্যান্ড টিউবওয়েল এবং ১ হাজার ১৬৬ টি উৎপাদক নলকূপ স্থাপন করেছে। নিরাপদ পানির উৎসবিহীন প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩৬ হাজার ১৮৪ টি টিউবওয়েল ও ২৬ হাজার ৮০৯ টি ওয়াশব্লক নির্মাণ করেছে।তিনি বলেন, স্বাস্থ্যসম্মত স্যানিটেশন ও স্বাস্থ্য ব্যবস্থাপনায় সঠিক উপায়ে হাত ধোয়ার বিষয়টি অপরিহার্য। নিউমোনিয়া, আমাশয়, টাইফয়েড, জন্ডিস, কৃমির মত রোগের সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচার জন্য প্রতিরোধ ব্যবস্থা হিসেবে সঠিক উপায়ে হাত ধৌতকরণ একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। বিদ্যালয়ে টয়লেট ব্যবহারের পর ও খাবার গ্রহণের পূর্বে হাত ধোয়ার সাবান ব্যবহারের সুবিধা থাকলে শিশুদের বিকাশ দ্রুততর হয়। ‘হাত ধোব নিয়মিত, থাকবো সবাই স্বাস্থ্যসম্মত’ প্রতিপাদ্য-কে ধারণ করে প্রতিটি শিশুকে পরিবার ও বিদ্যালয়ে নিয়মিত হাত ধোয়ার ব্যাপারে প্রশিক্ষণ প্রদান ও সচেতন করতে হবে।

মন্ত্রী আরও বলেন, বর্তমান সরকারের গৃহীত কর্মসূচীর আওতায় আমাদের দেশে এখন উন্মুক্তভাবে মলত্যাগের হার শতকরা ১ ভাগের নিচে নেমে এসেছে। ২০২১ সালের মধ্যে শতভাগ লোকের স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ব্যবহার নিশ্চিতে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। তিনি বলেন, শুধু স্বাস্থ্যসম্মত টয়লেট ব্যবহার করলেই চলবেনা, সার্বিক স্যানিটেশন অর্জনে প্রাকৃতিক পরিবেশ রক্ষার বিষয়ে সবাইকে সজাগ থাকতে হবে। তিনি উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ও গণমাধ্যম কর্মীদের এ বিষয়ে সচেতনতা তৈরিতে জোরালো ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।পরে মন্ত্রী বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীদের সাথে হাত ধোয়ার মাধ্যমে ‘বিশ^ হাত ধোয়া দিবস-২০১৮’ এর উদ্বোধন ঘোষণা করেন।উল্লেখ্য, বিশ্বে অন্যান্য দেশের মত বাংলাদেশে ২০০৯ সাল থেকে এ দিবসটি পালন করা হচ্ছে।