জাতীয় ঢাকা

নাড়ির টানে বাড়ির পথে

badal-3bg20130806175511 আছাদুজ্জামান, নিউজ২৪বিডি.কম ,ঢাকা: ঈদ উদযাপনের জন্য পথের নানা দুর্ভোগ উপেক্ষা নাড়ির টানে রাজধানী ছাড়তে শুরু করেছে সব শ্রেণি পেশার মানুষ। বুধবার থেকে অনেক প্রতিষ্ঠানে ঈদের ছুটি ঘোষণা করায় রাজধানী থেকে বহির্গমনের সবগুলো পয়েন্ট দিয়েই ঘরমুখো মানুষেরা ছুটছেন যে যার গন্তব্যে।জানা গেছে, রাজধানীর প্রায় দেড় কোটি মানুষের বেশিরভাগই আপনজনের সঙ্গে ঈদ করতে ইট-পাথরের রাজধানী ছেড়ে যাচ্ছেন। তবে রাজধানী ছাড়তে গিয়ে বিভিন্ন ধরনের ঝামেলা পোহালেও ঘরমুখো মানুষের মধ্যে উৎসাহের কমতি নেই একেবারেই।বাড়ি ফেরাকে কেন্দ্র করে রাজধানীর দূরপাল্লার বাস-লঞ্চ স্টেশনগুলো এখন যাত্রী মুখর। রাজধানীর গাবতলী, কল্যাণপুর, সায়েদাবাদ, যাত্রাবাড়ী, মহাখালী বাসস্ট্যান্ড ও কমলাপুর রেলস্টেশন ঘুরে দেখা গেছে এমনই চিত্র।বুধবার রাত দেড়টার দিকে কমলাপুর স্টেশনে দেখা যায়, ভোর ৫ টার ট্রেন ধরতে স্টেশনে অপেক্ষা করছেন অনেক যাত্রীকে। এ দীর্ঘ অপেক্ষায় একটু বিশ্রাম নিতে যাত্রীরা কাগজ ও চাঁদর বিছিয়ে শুয়ে সময় কাটাচ্ছেন। অনেকে দীর্ঘ লাইনে দাঁড়িয়ে অনলাইনে কেনা টিকেট সংগ্রহ করছেন।প্রসঙ্গত, রাজনৈতিক দল হিসেবে জামায়াতে ইসলামীর নিবন্ধন অবৈধ ঘোষণার প্রতিবাদে সংগঠনটির ডাকা ঈদ পরবর্তী হরতাল ঘরমুখো মানুষদের ঢাকায় ফেরাকে জটিল করে তুলেছে। আগামী ১৩ ও ১৪ আগস্ট হরতাল ডেকেছে জামায়াত।গাবতলী বাস টার্মিনালে বেসরকারি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত আওলাদ মোল্লা হটনিউজকে জানান, ঈদের ছুটি কাটিয়ে ১৩ আগস্ট ঢাকা ফেরার ইচ্ছা ছিল। এখনতো একদিন আগেই ফিরতে হবে। হরতালের কারণে অনেকেই পরিবারের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ঠিকমত ভাগাভাগি করতে পারবেন না বলে তিনি মন্তব্য করেন।এদিকে কল্যাণপুর বাস টার্মিনালে অপেক্ষামান ঝিনাইদহের যাত্রী ফয়সাল নুর হটনিউজকে জানান, চিন্তায় আছি ঢাকা ফেরা নিয়ে। এমনিতেই ঈদের পর ঢাকা ফিরতে অনেক দুর্ভোগে পরতে হয়। তারপর আবার হরতাল।তবে জামালপুরগামী ব্রহ্মপুত্র এক্সপ্রেসের যাত্রী ইসহাক পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করাকে গুরুত্ব দিচ্ছেন বেশি। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, হরতালের যত কষ্টই হোক তার থেকে বাড়ি ফেরার আনন্দ অনেক বেশি।

গভীর রাতেও সরেজমিনে রাজধানীর শ্যামলী, সায়েদাবাদ ও যাত্রাবাড়ীর বাস কাউন্টারগুলোতে দেখা গেছে ঘরমুখো মানুষের দীর্ঘ লাইন। মঙ্গলবার সন্ধ্যা থেকে রাত ১১টা অবধি সায়েদাবাদ-যাত্রাবাড়ী তীব্র যানজট থাকায় ঢাকার বাইরে কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। তবে রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাস ছাড়তে শুরু করে।

এদিকে জামায়াতের ডাকা হরতাল একদিন পেছানোর কারণে নতুন করে ফিরতি টিকিটের খোঁজ করছেন অনেকে। ঝিনাইদহের হাটগোপালপুরের যাত্রী আরিফ হোসেন জানান, তিনি টিকিট ফেরত দিয়েছিলেন। হরতাল পেছানোর কারণে আজ আবার ফিরতি টিকিট কিনবেন।