গাজীপুর জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর রাজনীতি সারাদেশ

জাহাঙ্গীরের প্রতিশ্রুতি পরিকল্পিত নগর গড়ার ,হাসান সরকারের ভেদাভেদ ভোলার আহ্বান

গাজীপুর প্রতিনিধি: হাসান সরকার ও জাহাঙ্গীর আলমগাজীপুরকে একটি পরিকল্পিত নগরী হিসেবে গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী অ্যাডভোকেট জাহাঙ্গীর আলম। তিনি বলেন, ‘আমি নির্বাচিত হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় একটি পরিকল্পিত নগর উপহার দিতে পারবো।’ এদিকে সব ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে নির্বাচনি প্রচারণায় একসঙ্গে কাজ করতে দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মেয়র প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার। তিনি বলেন, ‘অতীতের সব ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধভাবে আমাদের বিজয় ছিনিয়ে আনতেই হবে।’ মঙ্গলবার (১৯ জুন) দুপুর থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত নগরের পৃথক স্থানে গাজীপুর সিটি করপোরেশনের নির্বাচনি প্রচারণাকালে তারা এসব কথা বলেন ।

দুপুর আড়াইটার দিকে মহানগরের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের সুরাবাড়ি-ধানশিড়ি স্কুল মাঠে পথসভায় অংশ নিয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, ‘আমি বিশ্বাস করি এবং ভোটারদের ওপর আমার আস্থা আছে নির্বাচনে তারা নৌকায় ভোট দিয়ে আমাকে জয়ী করবেন।’ উপস্থিত জনতার উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, ‘আমরা সবাই এক। কেউ যেন সংর্ঘষে না জড়ায় সেদিকে খেয়াল রাখবেন। কাউকে ছোট করে কথা বলবেন না। কাউন্সিলদের মূল্যায়ন করেই এখানে সব কাজ করা হবে।’

আওয়ামী লীগ প্রার্থী বলেন, সবার অংশগ্রহণে উৎসবমুখর পরিবেশে নির্বাচন হোক এটাই আমার প্রত্যাশা। আমি সবার সহযোগীতা এবং নৌকা মার্কায় ভোট চাই।’

জাহাঙ্গীর আরও বলেন, ‘কাশিমপুর এলাকা এখনও কম জনবসতিপূর্ণ। খুব সহজেই এখানে পরিকল্পিত নগর গড়ে তোলা যাবে। এখানে রাস্তাঘাট হয়নি। আমি নির্বাচিত হলে আওয়ামী লীগ নেতাদের এবং এলাকার মুরব্বীদের নিয়ে একটি মাস্টার প্লান করে সেই মোতাবেক কাজ করবো।’ এসময় ঘরে ঘরে গিয়ে ভোট চেতে নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বানও জানান তিনি।

গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট আজমত উল্লাহ খান বিকালে ১১ নম্বর ওয়ার্ডের কালের ভিটায় পথসভায় যোগ দেন। এসময় তিনি বলেন, ‘জাহাঙ্গীর আলম একজন ভালো মানুষ। আপনারা নৌকা মার্কায় ভোট দিন। আপনাদের ভোট বিফলে যাবে না। জননেত্রী শেখ হাসিনার সহযোগিতায় একটি পরিকল্পিত নগর উপহার দিতে পারবেন জাহাঙ্গীর।’

আজমত উল্লাহ খান বলেন, ‘জাহাঙ্গীরের একার পক্ষে ১১ লাখ ভোটারের কাছে পৌঁছানো সম্ভব না। নেতাকর্মীরা প্রত্যেকেই এক একজন জাহাঙ্গীর হয়ে ভোটারের কাছে যেতে হবে। ইনশাল্লাহ আগামী ২৬ জুন নির্বাচনে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত।’

এদিকে গাজীপুর সিটি করপোরেশন নির্বাচনে বিএনপির প্রার্থী হাসান উদ্দিন সরকার মঙ্গলবার দুপুরের পর থেকে মহানগরের গাছা (পূর্ব) অঞ্চলের ৩২, ৩৩ ও ৩৫ নম্বর ওয়ার্ডের ইশড্ডা, জাঝর, অ্যারাবিয়ান গার্মেন্টস, বটতলা এলাকায় এবং বিকালে টঙ্গী (পূর্ব) এলাকার টিন্ডটি, শিলমুন, মরকুন এলাকায় গণসংযোগ ও পথসভা করেন।

পথসভায় হাসান সরকার বলেন, ‘আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী অতিমাত্রায় ওয়াদা দিচ্ছেন। তিনি ডাবল রেল লাইন ও চলমান বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটিসহ (বিআরটিএ) জাতীয় প্রকল্পগুলোকে স্থানীয় সরকারের প্রকল্প হিসেবে দেখানোর চেষ্টা করছেন। স্থানীয় সরকারের ক্ষমতা, পরিধি ও স্থানীয় সরকার আইন সম্পর্কে ধারণা থাকলে তিনি এসব ওয়াদা দিতেন না। তিনি এমন কিছু ওয়াদা দিচ্ছেন যা প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতাকেও হার মানাচ্ছে। জাহাঙ্গীর আলম কথায় কথায় কেন্দ্রীয় সরকারের কথা বলছেন। কিন্তু, সিটি করপোরেশনের মতো স্বায়ত্বশাসিত প্রতিষ্ঠানে কেন্দ্রীয় সরকারের হস্তক্ষেপ করার কোন সুযোগ নেই। নিজের যোগ্যতা বলেই স্থানীয় সরকার পরিচালনা করতে হয়। নিজের যোগ্যতা না থাকলে কেন্দ্রীয় সরকার এসে স্থানীয় সরকার পরিচালনা করবে না।’

স্থানীয় খাত থেকে রাজস্ব সংগ্রহের ধারণা ও যোগ্যতা থাকতে হবে জানিয়ে বিএনপি প্রার্থী বলেন, ‘স্থানীয় জনগণকে সম্পৃক্ত করে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড পরিচালনা করতে হবে। কারোর স্থানীয় সরকার সম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা না থাকলে তার স্থানীয় সরকার পরিচালনা করতে আসা মানে জনগণের দুর্ভোগ ডেকে আনা।’

নির্বাচন পরিচালনা কমিটির সব সদস্য ও এজেন্টদের উদ্দেশ্যে হাসান সরকার বলেন, ‘সকল ধরনের গুজব ও ভয়ভীতি উপেক্ষা করে সর্বাত্মকভাবে নির্বাচনি প্রচারণা চালিয়ে যেতে হবে। বিগত আন্দোলন সংগ্রামের কঠিন সময়ে আমরা ভয় পাইনি। এখনও নির্বাচনকালীন গ্রেফতার ও মিথ্যা মামলার ভয় করি না ।’ তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের পিঠ এখন দেয়ালে ঠেকে গেছে। আমাদের নেত্রীকে বিনা চিকিৎসায় মৃত্যুর মুখে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। এ অবস্থায় আমাদের পিছপা হওয়ার আর কোন সুযোগ নেই। অতীতের সব ভেদাভেদ ও ভুলভ্রান্তি ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধভাবে আমাদেরকে বিজয় ছিনিয়ে আনতেই হবে।’

নির্বাচনি প্রচারণায় হাসান সরকার
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের বরাত দিয়ে গাজীপুর সিটি নির্বাচনে বিএনপির মিডিয়া সেলের প্রধান ডা. মাজহারুল আলম বলেন, ‘খুলনা ও গাজীপুর এক নয়। গাজীপুরের বীর জনতা বারবার ইতিহাস রচনা করেছেন। গাজীপুর সিটি নির্বাচনেও গাজীপুরবাসী ধানের শীষকে বিজয়ী করে ইতিহাস রচনা করবেন।’