চট্টগ্রাম জাতীয়

রাজনৈতিক অস্থিরতা: বান্দরবানে পর্যটন ব্যবসায় ধস

Bandarban20130806095711হটনিউজ২৪বিডি.কম,বান্দরবান, ৬ আগস্ট: ঈদ পরবর্তী হরতালের কারণে অনেক পর্যটক হোটেল বুকিং বাতিল করেছে। এতে বান্দরবানে পর্যটন ব্যবসায়ীদের স্বপ্ন ভঙ্গ হতে চলেছে।
সবুজ অরণ্যে ঘেরা, পাহাড়, ঝরণা আর প্রাকৃতিক জলাধারের অপার সৌন্দর্যের লীলা ভূমি বান্দরবান। গত পাঁচ মাস ধরে এখানে পর্যটক শূন্যতা চলছে।
দেশের চলমান রাজনৈতিক অস্থিরতা ও সহিংসতা এর জন্য দায়ী। বলছেন স্থানীয় পর্যটন ব্যবসায়ীরা।
ঈদকে সামনে রেখে এই আর্থিক ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নিতে চেয়েছিলেন তারা। কিন্তু ঈদের পর ফের হরতাল দেওয়ায় তাদের সেই স্বপ্ন এখন শঙ্কায় পরিণত হয়েছে।
বছরের এসময়টাতে সাধারণত পর্যটকদের ভিড় লেগে থাকে। এসময় হোটেল, গেস্ট হাউস ও রেস্তোরা ব্যবসায়ীদের দম ফেলার ফুসরত মেলে না। এর বিপরীতে এখন তাদের অলস সময় কাটানোর পাশাপাশি গুনতে হচ্ছে লোকসান।
হোটেল হিল ভিউ এর জেনারেল ম্যানেজার রাহাত এলাহী হটনিউজকে বলেন, চলতি বছরের মতো পর্যটনের দু:সময় আর কখনো আসেনি। উপার্জন না হওয়ায় কর্মী ছাটাইয়ের কথাও ভাবতে হচ্ছে বলে জানান তিনি।
শহরের গ্রীনহিল হোটেল ম্যানেজার আশিষ ধর বলেন, জানুয়ারি থেকে খুব খারাপ অবস্থা চলছে। হোটেলে ১৭টি রুম থাকলেও ঈদের ছুটিতে মাত্র একটি রুম বুকিং হয়। তবে সেটিও বাতিল হয়েছে হরতালের কারণে।
দেশের অন্য পার্বত্য জেলা রাঙামাটি ও খাগড়াছড়িতে অপহরণ, খুন ও চাঁদাবাজির ঘটনায় পর্যটকরা বিড়ম্বিত। সে তুলনায় বান্দরবান অনেক শান্ত হওয়ায় পর্যটকদের পছন্দের তালিকায় শীর্ষে রয়েছে।
তবে পর্যটন ও ঈদ মৌসুম হলেও হরতাল বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে। তাই শহরের ৪৫টি হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউজসহ অন্যান্য কেন্দ্রগুলোর সিট বুকিং বাতিল করছে পর্যটকরা।
নরসিংদী থেকে নীলাচলে বেড়াতে আসা পর্যটক জান্নাতুল তামান্না বলেন, ‘আমাদের ঈদের পর বেড়াতে আসার কথা ছিল। কিন্তু হরতালের কারনে আগেই চলে আসলাম।’
বান্দরবান জেলা পুলিশ সুপার কামরুল আহসান হটনিউজকে জানান, ঈদ ঘিরে পর্যটন ব্যবসায়ীদের শঙ্কা রয়েছে। তবে পর্যটক আগমনের কথা মাথায় রেখে ঈদের আগে থেকেই জেলার নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদার করা হয়েছে।