অপরাধ ঢাকা

মিল্কি হত্যা: স্বীকারোক্তি দিলেন সাগরের স্ত্রী লোপা

images (1)আদালত প্রতিবেদক:যুবলীগ নেতা রিয়াজুল হক খান মিল্কি হত্যা মামলায় ফৌজদারি কার্যবিধির ১৬৪ ধারায় আদালতে স্বীকারোক্তি মুলক জবান বন্দি দিয়েছে মিল্কির সহযোগী সাগরের স্ত্রী ফাহিমা ইসলাম লোপা। গতকাল মামলার তদন্ত কর্মকর্তা র‌্যাবের সহকারী পরিচালক কাজী কাজামুর রহমান লোপাকে ঢাকা মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে হাজির করে জবান বান্দি রেকর্ড করার আবেদন করেন। পরে বেলা ১২.১০ মিনিটে থেকে ৩ টা পর্যন্ত লোপার স্বীকারোক্তি রেকর্ড রেকর্ড করেন ঢাকা মহানগর হাকিম শাহরিয়ার মাহমুদ আদনান। স্বীকারোক্তিতে লোপা বলেন,‘ সাগরের সঙ্গে আমার বিয়ে হয় ২০০৮ সালে। সেই থেকে আমার কোনও সন্তান হয়নি। আমার সঙ্গে তারেক ভাইয়ার সম্পর্ক শুরু হয় এখন থেকে দেড় বছর আগে। তারেক ও মিল্কি বন্ধু ছিল। লোপা তার জবানবন্দিতে বলেন,‘ তারেক খুব ধূর্ত। সে কাউকেই বিশ্বাস করত না। নিজের স্বার্থের জন্য সে সব কিছু করতে পারত। লোপা বলেন,‘অনেক আগে থেকেই তারেক,টিপু,আরিফ ভাইয়ারা মিল্কিকে কাকাকে হত্যার পরিকল্পনা করে। আমাকে এ কথা তারেক একাধিকবার আমাকে বলেছে। যে দিন মিল্কি কাকাকে হত্যা করা হয় সেদিন তারেককে রাত সাড়ে এগারটার দিকে মিল্কি কাকা গুলশানে যাচ্ছেন তা আমি জানাই। মতিঝিল এলকায় আধিপত্য বিস্তার ও রাজনৈতিকভাবে মিল্কি কাকাকে পথের কাটা ভাবত তারেকরা। যে কারণে এরা অনেক আগেই মিল্কি কাকাকে হত্যা করার পরিকল্পনা করে।’ গত সোমবার রাতে যুবলীগের ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সাংগঠনিক সম্পাদক রিয়াজউদ্দিন খান ওরফে মিল্কিকে গুলশানে শপার্স ওয়ার্ল্ডের সামনে গুলি করে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। গত বুধবার যুবলীগ নেতা জাহিদ সিদ্দকী তারেক র‌্যাবের সঙ্গে ক্রসফায়ারে নিহত হন। হত্যার পর মিল্কির ভাই মেজর রাশিদুল হক বাদী হয়ে গুলশান থানায় একটি হত্যা মামলা করেন।