ঢাকা রাজনীতি

হেমায়েত উল্লা আওরঙ্গকে শেষ শ্রদ্ধা ও ভাল বাসা

download (1)মোঃ বোরহান উদ্দিন রব্বানী, শরীয়তপুর : ফুলেল শ্রদ্ধা আর ভালবাসায় হেমায়েত উল্লা আওরঙ্গকে শেষ বিদায় জানালেন শরীয়তপুর বাসী। আজ রোববার দুপুর সাড়ে ৩ টায় ৪র্থ জানাজার জন্য হেলিকপ্টারে করে তার মৃতদেহের কফিন প্রথমে তার নিজ এলাকা ডামুড্যা উপজেলা মাঠে নিয়ে আশা হয়। ডামুড্যা উপজেলা মাঠে নিয়ে আসার পর রাজনৈতিকনেতাকর্মী ও এলাকার স্বজনদের কান্নয় আকাশ বাতাস ভারী হয়ে উঠে। আত্বীয়স্বজন, সহকর্মী, শুভার্থী ও শুভানুধ্যায়ীদের চোখের জলে ভাসিয়ে শেষ বিদায় নেন তিনি। চলে যান না ফেরার দেশে। সেখানে জানাযা শেষে বিকাল ৪টায় পঞ্চম জানাযার জন্য শরীয়তপুর স্টেডিয়ামে নিয়ে আশা হলে তার প্রতি শ্রদ্ধা জানাতে ঢল নামে হাজার হাজার মানুষের। দল মত নির্বিশেষে সবাই ছুটে আসেন শ্রদ্ধা জানাতে। তার পঞ্চম জানাজা শেষে ৪টা ৫০মিনিটের সময় হেলিকপ্টার যোগে লাশ ঢাকায় নিয়ে মিরপুর শহীদ বুদ্ধিজীবি গোরস্থান দাফন করা হয়। জানাযায় অংশগ্রহন করে জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার শওকত আলী,বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে মৃতদেহের প্রতি সেলুট জানিয়ে ভালবাসা ব্যাক্ত করেন।

এর পূর্বে মরহুমের কফিনে ফুল দিয়ে শেষ শ্রদ্ধা জানান,শরীয়তপুর জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কাউন্সিল,আওয়ামীলীগ ও বিএনপিরনেতৃবৃন্ধ। জানাজা শেষে শরীয়তপুর জেলা পুলিশের একটি চৌকশদল গার্ড অব অনার প্রদান করেন।

জানাযা পূর্ব আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের ডেপুটি স্পীকার কনেল (অবঃ) শওকত আলী এমপি,শরীয়তপুর -১ আসনের সংসদ সদস্য ও বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক বি এম মোজাম্মেল হক, জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক সরদার একে এম নাছির উদ্দিন কালু, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের নিবার্হী কর্মিটির সদস্য এনামুল হক শামীম,শরীয়তপুর পৌরসভার মেয়র আবদুর রব মুন্সী, ইকবাল হোসেন অপু, রফিকুল ইসলাম কোতোয়াল, পৌরসভা বিএনপির সাবেক সভাপতি আবদুর মান্নান মাদবর প্রমুখ।

কে এম হেমায়েত উল্লাহ আওরঙ্গজেবর মৃত্যুতে শরীয়তপুর জেলা বিএনপি ও উপজেলা বিএনপি৭ দিনের শোক কর্মসূচির প্রথম দিনে আজ রোববার দলীয় কার্যালয়ে কালো পতাকা অর্ধনমিত, কালো ব্যাজ ধারন ও মিলাদ মাহফিল আয়োজন করা হয়।

এদিকে বাকী ৫ জনের মরদেহ গতকাল রাতে ও আজ সকালে রোববার সকালে শরীয়তপুরের গোসাইরহাট ও ডামুড্যায় নিয়ে আসা হয়। মরদেহগুলো নিজ নিজ এলাকায় নেয়ার পর এক হৃদয়বিদারক দৃশের অবতারনা হয়। আত্বীয়স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েৃন। গোসাইরহাট উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক নুরু উদ্দিন পেদা ও গোসাইরহাট উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতা হযরত আলী সরদারকে পরে সকাল ১১ টায় গোসাইরহাট বায়তুল সালাম জামে মসজিদ মাঠে জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। জানাজা শেষে নূরু উদ্দিন পেদাকে গোসাইরহাটের ধীপুরে এবং হযরত আলী সরদার লাশ নলমুড়ি এলাকায় দাফন করা হয়।এদিকে দুপুরে বিএনপির কেন্দ্রীয কার্যালয়ের সামনে জানাজা শেষে কেন্দ্রীয় যুবদলের সহ-সম্পাদক এস এম নুরুজ্জামান জামানকে নিজ বাড়ী গোসাইরহাটের কোদালপুর, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সহ-দপ্তর সম্পাদক মুন্সী জামাল উদ্দিনকে ডামুড্যার কনেশ্বর ও ইয়াসিন হাওলাদারকে পূর্ব ডামুড্যা গ্রামে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।