জাতীয় ঢাকা

গৃহকর্মী লাইলীর গলায়-মাথায় আঘাতের চিহ্ন

রাজধানীর বনশ্রীতে রহস্যজনক মৃত্যুর শিকার গৃহকর্মী লাইলি বেগমের (২৫) ময়নাতদন্তে গলায় ও মাথায় আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

শনিবার বিকেলে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. সোহেল মাহমুদ। এর আগে তিনি বিকেল ৩টা থেকে ৩টা ৪০ মিনিট পর্যন্ত নিহতের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন করেন।

ডা. সোহেল মাহমুদ বলেন, তার গলায় ফাঁসের চিহ্নসহ মাথায় সামান্য আঘাতের চিহ্ন পাওয়া গেছে।

তবে খিলগাঁও থানা পুলিশের করা সুরতহাল প্রতিবেদনে লাইলির মাথায় আঘাত থাকার বিষয়টি ওঠে আসেনি।

লাইলির হত্যার মোটিভ জানতে কয়েকটি ফরেনসিক পরীক্ষা করা হবে বলে জানান ডা. সোহেল মাহমুদ। এর মধ্যে ভিসেরা, ডিএনএসহ তিনটি পরীক্ষার কথা উল্লেখ করেছেন তিনি।

তিনি বলেন, পরীক্ষাগুলোর পূর্ণাঙ্গ প্রতিবেদন হাতে পেলে বোঝা যাবে তাকে হত্যা করা হয়েছিল কিনা।

শুক্রবার সকালে বনশ্রীর জি ব্লকের ৪ নম্বর রোডের ১৪ নম্বর ভবনের নিচতলায় মইনউদ্দিনের বাসায় গৃহকর্মী লাইলি ওরফে মরিয়মকে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে বাসার সদস্যরা তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

এর পর লাইলির স্বজনরা অভিযোগ তোলেন, ওই গৃহকর্মী আত্মহত্যা করেননি, তাকে হত্যা করা হয়েছে। গৃহকর্তা মইনউদ্দিন এটিকে আত্মহত্যা বলে চালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন।

লাইলির স্বজনদের সঙ্গে একাত্ম হয়ে মইনউদ্দিনের গ্রেপ্তার ও বিচার দাবিতে বিক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে এলাকাবাসী। এ সময় তারা একটি গাড়ি পুড়িয়ে দেয়। তারা মইনউদ্দিনের বাসার ওই ভবনটি লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছুঁড়তে থাকে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সেখানে গেলে একপর্যায়ে পুলিশের সঙ্গে তাদের সংঘর্ষ বেধে যায়। রাত সাড়ে ১০টার দিকে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে।