অপরাধ জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর সারাদেশ

জবানবন্দি শেষে কারাগারে নাঈম আশরাফ

হটনিউজ ডেস্ক : রাজধানীর বনানীতে দ্য রেইন ট্রি হোটেলে বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের মামলার অন্যতম আসামি নাঈম আশরাফের স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি গ্রহণ শেষে তাকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। সাত দিনের রিমান্ড শেষে আজ বৃহস্পতিবার বেলা ১১টায় তাকে আদালতে হাজির করা হয়।

এসময় স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি রেকর্ডের আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ভিকটিম সাপোর্ট সেন্টারের পুলিশ পরিদর্শক ইসমত আরা এমি। আবেদনের প্রেক্ষিতে ঢাকা মহানগর হাকিম সত্যব্রত শিকদারের আদালত তার জবানবন্দি রেকর্ড করেন। জবানবন্দি রেকর্ড এরপর তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

এর আগে গেলো বৃহস্পতিবার নাঈম আশরাফকে আদালতে হাজির করে তার ১০ দিন রিমান্ড আবেদন করেন তদন্ত কর্মকর্তা ইসমত আরা এমি। শুনানি শেষে আদালত তার ৭ দিন রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

নাঈম আশরাফকে গত ১৭ মে রাতে মুন্সীগঞ্জের লৌহজং থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরদিন তার সাতদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

এদিকে ওই ঘটনায় সাফাত আহমেদ ও সাদমান সাকিফ গত ১৮ মে আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। সাফাতের গাড়িচালক বিল্লাল হোসেনও আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। আর সাফাতের দেহরক্ষি রহমত আলী রিমান্ড শেষে কারাগারে রয়েছেন।

বনানীতে ২ ছাত্রী ধর্ষণ মামলায় আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন মামলার অন্যতম আসামি নাঈম আশরাফ। পরে তাকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত।

প্রসঙ্গত, ২৮ মার্চ বন্ধুর জন্মদিনের পার্টিতে গিয়ে বনানীর দ্য রেইনট্রি হোটেলে ধর্ষণের শিকার হন বেসকারি বিশ্ববিদ্যালয়ের দুই ছাত্রী। ওই ঘটনার ৪০দিন পর গেলো ৬ মে বনানী থানায় সাফাত আহমেদ, নাঈম আশরাফ ও সাদমান সাকিফসহ ৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন নির্যাতিত ছাত্রীদের একজন। মামলার আসামি সাফাত আপন জুয়েলার্সের মালিক দিলদার আহমেদের ছেলে। আর সাদমান সাকিফ রেগনাম গ্রুপের মালিকের ছেলে এবং ওই গ্রুপের পরিচালক। নাঈম আশরাফ নিজেকে আওয়ামী লীগ নেতার ছেলের বন্ধু বলে পরিচয় দিয়ে থাকেন। তার গ্রামের বাড়ি সিরাজগঞ্জে। তার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময় নানা প্রতারণার অভিযোগ রয়েছে।