জাতীয় ঢাকা বিনোদন

কোন গুজবে ‘কান’ দেবেন না

ফ্রান্স প্রতিনিধি:  কোন গুজবে কান দেবেন না। সাগরপাড়ের শহরটিতে কিছুদিন ধরে গুঞ্জন চলছে, প্রতিযোগিতা বিভাগে নির্বাচিত ছবিগুলোর মধ্য থেকে বং জোন-হো’র ‘ওকজা’ এবং নোয়া বামব্যাচের ‘দ্য মেয়ারোউইৎজ স্টোরিস’ বাদ পড়েছে। এই গুজবের ইতি টানতে আয়োজকরা সংবাদ বিজ্ঞপ্তি পাঠাতে বাধ্য হয়েছেন। জানিয়েছেন, কান উৎসবকে ঘিরে কোনও গুজবে ‘কান’ না দিতে। বং জোন-হো এবং নোয়া বামব্যাচের ছবি দুটি নির্মাণের পেছনে নেটফ্লিক্সের বিশাল অর্থনৈতিক লগ্নি আছে। এ কারণে বাতাসে ভেসে বেড়াচ্ছে, প্রেক্ষাগৃহের পরিবর্তে এগুলো উন্মুক্ত হবে বিনোদনমূলক ওয়েবসাইটটিতে। তাই

যদিও গুজবে কান না দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন কান উৎসব কর্তৃপক্ষ। তাদের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, গত ১৩ এপ্রিল ঘোষিত প্রতিযোগিতা বিভাগের ছবির তালিকায় ‘ওকজা’ ও ‘দ্য মেয়ারোউইৎজ স্টোরিস’ ছিল, এখনও আছে। স্বর্ণপামের জন্য লড়াইয়ে থাকছে এগুলো।
নেটফ্লিক্সের প্রযোজনা হওয়ায় ফ্রান্সের প্রেক্ষাগৃহগুলোতে এ দুটি ছবির মুক্তি না পাওয়ার ব্যাপারে আয়োজকরা ওয়াকিবহাল। এ নিয়ে তাদের তেমন আপত্তি নেই। তবে তারা চেয়েছেন, নেটফ্লিক্সের সাবস্ক্রাইবাররা যেন এগুলো ওয়েবসাইটে দেখতে না পারে। অবশ্য এ নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে কোনও সমঝোতা চুক্তি হয়নি।
‘ওকজা’ ছবির দৃশ্যতবে চলচ্চিত্রে নতুন বিনিয়োগকারী এগিয়ে আসায় উৎসব আয়োজকরা আনন্দিত। তারা শুধু চান, ফ্রান্সসহ বিশ্বজুড়ে সিনেমা হলে প্রদর্শনীর চিত্রটা যেন বদলে না যায়। এক্ষেত্রে সহযোগিতামূলক মনোভাব দেখানোর জন্য নেটফ্লিক্সকে বারবার বলছেন তারা।
নেটফ্লিক্সের ঘটনাটি মাথায় রেখে কান উৎসবের হর্তাকর্তারা সিদ্ধান্ত নিয়েছেন, এখন থেকে প্রতিযোগিতা বিভাগে অংশ নিতে হলে ফ্রান্সের সিনেমা হলে তা প্রদর্শনের প্রতিশ্রুতি দিয়ে তাদের সঙ্গে চুক্তি করতে হবে। ২০১৮ সাল থেকেই এ নিয়ম চালু হবে বলে সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়।
এবারের আসরকে ঘিরে বিতর্কের ঘটনা আরও আছে। উৎসবের অফিসিয়াল পোস্টারকে আকর্ষণীয় করতে ফটোশপের কেরামতির মাধ্যমে বর্ষীয়ান ইতালিয়ান অভিনেত্রী ক্লডিয়া কার্ডিনালের ওজন কমানোর অভিযোগ উঠেছিল। যদিও কানের পরিচালক থিয়েরি ফ্রমোর দাবি, সবাই এ পোস্টারকে সাদরে গ্রহণ করেছে। পোস্টারে স্থান পেয়ে সম্মানিত বলে জানিয়েছেন ক্লডিয়াও। নিজের ছবিতে কারিকুরি হওয়ায় কোনও অভিযোগই তোলেননি ৭৮ বছর বয়সী এই অভিনেত্রী।
এদিকে বিতর্ক আর গুজবকে সঙ্গী করেই বুধবার (১৭ মে) শুরু হচ্ছে বিশ্ব চলচ্চিত্রের সবচেয়ে মর্যাদাসম্পন্ন এই আয়োজন। চলবে ২৮ মে পর্যন্ত। উৎসবের সর্বোচ্চ পুরস্কার স্বর্ণপাম জিতবে কে তা নির্ধারণের কাজে বিচারকদের নেতৃত্ব দেবেন স্প্যানিশ নির্মাতা পেড্রো আলমোডোভার।
আনসার্টেন রিগার্ডের মূল বিচারক থাকছেন উমা থারম্যান। স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র বিভাগ এবং বিভিন্ন দেশের ফিল্ম স্কুলে শিক্ষার্থী নির্মাতাদের বিভাগ সিনেফন্ডেশনের বিচারকরা কাজ করবেন রোমানিয়ার ক্রিস্টিয়ান মুঙ্গিউর নেতৃত্বে। আর ক্যামেরা দ’র বিভাগের বিচার ফরাসি অভিনেত্রী সনদ্রিন কিবারলিয়েন।