ঢাকা রাজনীতি

নিবন্ধিত ১৯ দলের আয় ব্যয়ের হিসাব জমা

N-005220130731084249হটনিউজ২৪বিডি.কম,নিজস্ব প্রতিবেদক,ঢাকা, ৩১ জুলাই: নিবন্ধিত থাকবার শর্ত হিসেবে ২০১২ সালের আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দিয়েছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ, প্রধান বিরোধী দল বিএনপি, মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টিসহ ১৯টি দল।
চারটি দল আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেয়ার সময় চেয়ে আবেদন করেছে। বুধবার দিনের বিভিন্ন সময়ে পৃথক পৃথক ভাবে নিজ নিজ দল এ আয় ব্যায় দাখিল করেছেন।
বুধবার সকালে নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ে বিএনপির দফতর সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কবির রিজভী বিএনপির ২০১২ সালের আয় ব্যয়ের হিসাব জমা দিয়ে সাংবাদিকদের জানান, ২০১২ সালে বিএনপির মোট আয় ছিল এক কোটি ৭৯ লাখ ১২ হাজার ২৩১ টাকা এবং ব্যয় হয়েছে দুই কোটি ২৬ লাখ ৯ হাজার ১৪৩ টাকা। ঘাটতি ব্যয় ব্যাংকের আমানত থেকে মেটানো হয়েছে বলে রিজভী জানান।
আয়ের উৎস সম্পর্কে রিজভী জানান, বিএনপির প্রত্যেক স্তরে নির্দিষ্ট চাঁদা রয়েছে। স্থায়ী কমিটির সদস্য, উপদেষ্টা, যুগ্ম মহাসচিব, সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাধারণ সদস্য থেকে নির্বাহী কমিটির প্রত্যেক সদস্যের নির্দিষ্ট চাঁদা রয়েছে। সেইসঙ্গে দলীয় সংসদ সদস্য ও শুভাকাঙ্খীদের অনুদানও রয়েছে। এছাড়া ব্যাংকের আমানত থেকে আসা সুদও আয়ের অন্যতম উৎস।
ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ ২০১২ সালে দলটির আয় প্রায় ১০ কোটি টাকা। আর ব্যয়ও এর কাছাকাছি। এর মধ্যে বঙ্গবন্ধু এভিনিউতে পৌনে পাঁচ কোটি টাকা ব্যয়ে দলীয় অফিস নেয়া হয়েছে।
আওয়ামী লীগের পক্ষে দলের উপদপ্তর সম্পাদক মৃণাল কান্তি দাশ কমিশনে হিসাব জমা দেন। পরে তিনি সাংবাদিকদের বলেন, “নির্বাচন কমিশনের আইন অনুযায়ী হিসাব জমা দিয়েছি।
সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম দলের পক্ষে নির্বাচন কমিশনে এটি পাঠিয়েছেন। জাকারিয়া অ্যান্ড কোম্পানি নামের প্রতিষ্ঠান এটি করেছে।“ গতবছরের তুলনায় আয়-ব্যয় কিছুটা বেড়েছে বলে জানান তিনি।
মহাজোটের শরিক জাতীয় পার্টির পক্ষে প্রেসিডিয়াম সদস্য তাজুল ইসলাম চৌধুরী আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেন। দলটির ২০১২ সালে বার্ষিক আয় ৪ কোটি ৮০ লাখ টাকা। ব্যয়-৪ কোটি ৯০ লাখ টাকা। দলীয় সদস্যদের চাঁদা ও অনুদান থেকে এ আয় বলে জানানো হয়েছে।
এর বাইরে বুধবার আরো দুটি দল আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেয়। এর আগে মঙ্গলবার আরো ১৪টি দল হিসাব জমা দেয়। অর্থাৎ এ পর্যন্ত ১৯টি দলের আয় ব্যয়ের হিসাব কমিশন পেয়েছে। চারটি দল হিসাব জমা দেয়ার জন্য সময় চেয়ে কমিশনে আবেদন করেছে।
নির্বাচন কমিশনে নিবন্ধিত মোট দল ৩৮টি। ফলে বাকি দলগুলোর মধ্যে আরো কেউ হিসাব জমা দিয়েছে কি না, তা এখনো কমিশন পরিষ্কার নয়। কারণ কমিশনের ডেসপাচ শাখায় হিসাব জমা দিয়ে গেলে সেটি ফাইলবন্দী হতে কিছুটা সময় লাগে বলে কমিশন সূত্র জানিয়েছেন।
বিএনপি নেতৃত্বাধীন বাংলাদেশ জামায়েতে ইসলামীর আয়-ব্যয় কাউন্ট বিষয়ে বলা হচ্ছে, আগামীকাল মামলার রায়ের মধ্য দিয়ে বিষয়টি পরিস্কার হবে। মামলার রায়ের উপর নির্ভর করবে জামায়াতের আগামী দিনের রাজনীতি।