চট্টগ্রাম সারাদেশ

সভায় সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ

images (3)নিজস্ব বার্তা পরিবেশক, চাঁদপুর:আল্লাহকে রাজী খুশি করাতে হলে আমাদের প্রত্যেককে অসহায়, দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে চাঁদপুরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোঃ শফিকুল করিম বলেছেন, একমাত্র আল্লাহ ছাড়া আর কেউই নিরঙ্কুশ ক্ষমতার অধিকারী নন। আল্লাহ কারো মুখাপেক্ষি নন। তিনি বলেন, ফেরশতাদের চাইতেও আল্লার কাছে মানুষের মর্যাদা অনেক বেশি। কারণ আল্লাহ মানুষ সৃষ্টি করে ফেরেশতাদের দিয়ে মানুষকে সিজদা করিয়েছিলেন। মানুষ আল্লার বন্ধু হতে পারে, ফেরশতারা নন। সেই মানুষ হয়ে আমরা যদি অন্য আরেকজন মানুষের সুখে দুঃখে কাজে লাগতে না পারি তাহলে আল্লাহ অসন্তুষ্ট হন। তিনি বলেন, বিচারকদের ক্ষমতা একটি গন্ডির ভেতর সীমাবদ্ধ। কিন্তু আল্লার ক্ষমতা অসীম। তাই আল্লাহকে রাজী খুশি করাতে হলে আমাদের প্রত্যেককে অসহায়, দুঃস্থ মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। জেলা জজ বলেন, পৃথিবীতে এমন কোন ধর্ম নেই যে ধর্মে মানুষের সেবা করার কথা না বলা হয়েছে। জেলা জজ আরো বলেন, ইসলাম ধর্মে মানুষের সেবার কথা বার বার বলা হয়েছে। বলা হয়েছে,‘ তুমি তোমার জন্য যে জামাটি কিনবে তোমার ভাইয়ের জন্যও যেন একই ধরনের জামা ক্রয় করবে’। মানুষে মানুষে কোন বৈষম্যের কথা ইসলাম স্বীকার করে না। জেলা ও দায়রা জজ বলেন, একসময় আরবে নিজের সন্তানদের জীবন্ত কবর দেয়া হত। কিন্তু সবশেষ নবী রাসূলে পাক (সাঃ) এসে সেই সমাজ ব্যবস্থায় পরিবর্তন এনেছেন। তিনি মানুষে মানুষে ভ্রাতৃত্বের বন্ধন গড়ে তুলেছিলেন। আর তাইতো আল্লাহ রাব্বুল আলামীন সেই মহানবীর উপর পৃথিবীর সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ কিতাব আল কুরআন নাজিল করেছেন। এই কোরআন হচ্ছে পুর্ণাঙ্গ জীবন বিধান। যাঁরা কোরানকে অনুস্মরণ করবে তারা ইহকাল এবং পরকাল – দু’জীবনেই শান্তি পাবে। তিনি বলেন, লোক দেখানোর জন্য মানুষের সেবা করার মধ্যে কোন সার্থকতা নেই। আল্লাহকে খুশি করার নিয়তে মানুষের পাশে দাঁড়াতে হবে। শফিকুল করিম বিনা খরচে আইনগত সহায়তা প্রদানের বিষয়টিকে ইবাদতের একটি অনুষঙ্গ হিসেবে গ্রহন করে এই বিষয়টি প্রত্যন্ত এলাকার মানুষের মধ্যে ছড়িয়ে দেবার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান। যাতে প্রকৃত অসহায় ও দুঃস্থ মানুষ বিনে পয়সায় আইনগত সহায়তা পেতে পারে।

জেলা ও দায়রা জজ মোঃ শফিকুল করিম বুধবার বিকেলে জজশীপ অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত আইনগত সহায়তা কমিটির ১০৫ তম সভায় সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন। জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট কামাল উদ্দিনের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন চাঁদপুরের প্রধান বিচারিক কর্মকর্তা দিলীপ কুমার ভৌমিক, সিনিয়র সহকারি জজ ও জেলা লিগ্যাল এইড কর্মকর্তা মোঃ ইব্রাহিম মিয়া, সিভিল সার্ডন ডাঃ এম এ ছাত্তার মিয়া, বিশিষ্ট নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন নাহার চৌধুরী, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ কামরুল ইসলাম, জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যডভোকেট কামরুল ইসলাম, চাঁদপুরের পিপি অ্যাডভোকেট মোঃ আমানউল্ল্যাহ, বিশেষ পিপি অ্যাডভোকেট হাবিবুল ইসলাম তালুকদার, চাঁদপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহ মোহাম্মদ মাকসুদুল আলম, সাধারণ সম্পাদক শরীফ চৌধুরী, দৈনিক চাঁদপুর দর্পণ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মোঃ ইকরাম চৌধুরী, দৈনিক চাঁদপুর সংবাদ পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মোঃ আঃ রহমান, দৈনিক চাঁদপুর প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মোঃ ইকবাল হোসেন পাওয়ারী, দৈনিক চাঁদপুর দিগন্ত পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক অ্যাডভোকেট মোঃ শাহজাহান মিয়া, দৈনিক মেঘনা বার্তা পত্রিকার সম্পাদক ও প্রকাশক মোঃ আব্দুল আউয়াল রুবেল, দৈনিক চাঁদপুর বার্তা পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক শহীদ পাটওয়ারী, দৈনিক চাঁদপুর প্রবাহ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক রহিম বাদশা, দৈনিক ইলশেপাড় পত্রিকার যুগ্ম সম্পাদক মাহবুবুর রহমান সুমন প্রমুখ। সভায় আইনগত সহায়তা কমিটির সদস্য, প্যানেল আইনজীবী, বেশ কয়েকজন বিচারিক ম্যাজিষ্ট্রেট উপস্থিত ছিলেন।

সভায় চাঁদপুরের অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্ট্রেট মোহাম্মদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক আইনগত সহায়তা কমিটির জন্য দু’টি সাউন্ডবক্সসহ মাইক প্রদাণের ঘোষণা দেন। উপস্থিত বিভিন্ন দৈনিকের সম্পাদকরা বিনে পয়সায় আইনগত সহায়তা কমিটির বিজ্ঞাপন প্রচারের ঘোষণা দেন। এছাড়া জেলা প্রশাসনের ওয়েব প্রোটেলে আইনগত সহায়তা কমিটির কার্যক্রম সন্নিবেশন করার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়। সবশেষে স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত নারী মুক্তিযোদ্ধা ডাঃ সৈয়দা বদরুন চৌধুরী চাঁদপুরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মোঃ শফিকুল করিম সচিব স্কেলে বেতন পাওয়ায় তাকে ফুল দিয়ে অভিনন্দন জানান এবং উপহার প্রদাণ করেন।