কৃষি রাজশাহী

রোপা আমনের পুরোদমে চাষাবাদ শুরু

????????????????স্টাফ রিপোর্টার নওগাঁ :অবশেষে গত রবি ও সোমবার নওগাঁয় স্বস্থির বৃষ্টি নেমেছে। ফলে খরা কেটে গিয়ে জমিতে পানি জমে যাওয়ায় জেলার কৃষকরা রোপা আমন চাষাবাদে এখন ব্যস্থ সময় অতিবাহিত করছেন। ভরা বর্ষায় ও দেখা ছিল না বৃষ্টির। ফলে বৃষ্টির নির্ভর রোপা আমন ধান চাষাবাদ করতে পারছিলেন না জেলার কৃষকরা। বাধ্য হয়ে অনেক কৃষক পানি কিনে সেচ দিয়ে চাষাবাদ শুরু করেন। তবে জেলার অধিকাংশ কৃষক বৃষ্টির জন্য অপেক্ষা করায় জেলার অধিকাংশ জমি অনাবাদী পরে থাকায় রোপা আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা ব্যহত হওয়ার আশংকা দেখা দেয়্। কৃষকরা হয়ে পড়েন হতাশ।কৃষকদের এই হতাশা কেটে গেছে গত ২ দিনের পর্যাপ্ত বৃষ্টিপাতে। তারা এখন ব্যস্ত রোপা আমন চাষাবাদে।জেলায় চলতি বর্ষা মৌসুমে ১লক্ষ ৯৯ হাজার ৭শ’ ৩৯ হেক্টর জমিতে রোপা আমন ধানের চাষাবার্দে লক্ষ্যমাত্রা ধার্য্য করা হয়েছে। কিন্তু কাংঙ্খিত বৃষ্টি না হওয়ার কারনে জেলার কৃষকরা জমি তৈরি ও চারা বীজ রোপন করতে পারছিলেন না। জেলার ১১টি উপজেলায় হাজার হাজার হেক্টর জমি পড়ে থাকে বৃষ্টির অভাবে। অনেক কৃষককে বাধ্য হয়ে প্রতিঘন্টা ২শ পাকা হিসেবে পানি কিনে সেচ দিয়ে চাষাবাদ শুরু করে। জেলার প্রায় ৪০ ভাগ কৃষক পানি কিনে রোপা আমনের চাষ করলে ও উৎপাদন খরচ বেড়ে যাওযায অধিকাংশ কৃষক চাষাবাদ থেকে বিরত থাকেন । তারা চাষাবাদ নিয়ে হয়ে পড়েন হতাশ।এর ফলে রোপা আমন চাষাবাদের লক্ষমাত্রা ব্যাহত হওয়ার আশংকা দেখা দেয়। তবে সব শংকা আর হতাশা দুর করে দিয়েছে গত ২ দিনের স্বস্থির বৃষ্টিপাত। কৃষকরা বলছেন,এই বৃষ্টির ফলে পানি সংকট দুর হয়েছে।রোপা আমন চাষে আর কোন সমস্যা নেই।বাড়তি খরচ ছাড়াইএখন জেলার কৃষকরা পুরোদমে রোপা আমন চাষ করছেন।

 

তবে রোপা আমন চাষ নিয়ে মোটেও চিন্তিত নন এই বরেন্দ্র বহুমুখি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের বরেন্দ্র বহুমুখি উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ নওগাঁ রিজিয়নের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রকৌশলী মো: জিন্নুরাইন খান।তিনি বলেন ২দিনে পর্যাপ্ত বৃষ্টি হয়েছে। এখন জেলায় রোপা আমন চাষাবাদে পানির সমস্যা হবেনা।