অপরাধ

সাব পোষ্ট মাস্টার ও কাউন্টার অপারেটরদের সিন্ডিকেট হতে বাংলাদেশ ডাক বিভাগকে বাঁচানোর আহ্বান

durnitiহটনিউজ২৪বিডি.কম : বাংলাদেশ ডাক বিভাগ দেশের একটি বৃহৎ সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। কিন্তু গুটিকয়েক কর্মচারীর জন্য ডাক বিভাগ তার গৌরব-ঐতিহ্য হারাতে বসেছে। সাব পোষ্ট মাস্টার ও কাউন্টার অপারেটরদের সিন্ডিকেট হতে ডাক বিভাগকে বাঁচানোর আহ্বান জানিয়েছেন সাধারণ কর্মচারীরা। উল্লেখ্য গুলশান ডাকঘরের সাব পোষ্টমাস্টার নাজমুল ও কাউন্টার অপারেটর বেলায়েত বনানী ডাকঘরের সাব পোষ্টমাস্টার নুরুল হাই ও কাউন্টার অপারেটর মোঃ শাহজাহান উত্তরা ডাকঘরের সাব পোষ্টমাস্টার খলিলুর রহমান ভূইয়া ও কাউন্টার অপারেটর আশরাফ প্রায় দীর্ঘদিন যাবৎ ঊগঝ এর মাধ্যমে শ্রীলংকার উদ্দেশ্যে পার্সেল প্রেরণ করেন। কিন্তু ঊগঝ পার্সেলের ভিতরে কিছু কাপড় ও বিভিন্ন মাদকদ্রব্য পাচার করে থাকেন বলে অভিযোগ করেছেন কর্মচারীরা। তার বিনিময়ে সাব পোষ্টমাস্টার ও কাউন্টার অপারেটররা ঊগঝ কার্টুনে প্রায় ১০ হাজার টাকা উৎকোচ গ্রহণ করে থাকেন। অন্য একটি সূত্র থেকে জানা গেল যে, বিভাগীয় অফিসের পরিদর্শক-১ মোঃ আনিসুর রহমান উক্ত তিন সাব পোষ্ট অফিস হতে মাসিক ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা মাসোয়ারা নিয়ে থাকেন। উক্ত তিনটি ডাকঘরের ঊগঝ জার্নাল পরিক্ষা করলে শ্রীলংকা কত কার্টুন ঊগঝ প্রেরণ করা হয়েছে তার সত্যতা জানা যাবে।

এ বিষয়ে পোষ্টমাস্টার জেনারেল মেট্রোপলিটন সৈয়দ আহাম্মেদ আলী ঘটনাটি তদন্ত করার জন্য ডেপুটি পোষ্টমাস্টার জেনারেল (তদন্ত) শেখ সাইফুল আলমকে তদন্তের দায়িত্ব দিয়েছেন। কর্মচারীদের মাঝে গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে অর্থের বিনিময়ে অভিযুক্ত কর্মচারীদের বাঁচানোর চেষ্টা করা হচ্ছে। তদন্তটি ভিন্ন ক্ষেত্রে প্রভাবিত করার চেষ্টা চালাচ্ছেন কিছু কর্মকর্তা। এসব অপরাধীকে সনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে প্রয়োজনীয় শাস্তির ব্যবস্থা গ্রহণ করার আহ্বান জানান সাধারণ কর্মচারীরা। এছাড়াও তারা ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয়ের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট ডাক বিভাগের হারানো গৌরব ও ঐতিহ্য রক্ষা করতে প্রয়োজনীয় সকল পদক্ষেপ নেয়ার জোর দাবি জানান।