জাতীয় ঢাকা

সাংসদ রনির জামিন বাতিল: গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি

imagesআদালত প্রতিবেদক :সাংবাদিক পেটানোর মামলায় পটুয়াখালী-৩ আসানের আওয়ামী লীগের সাংসদ গোলাম মাওলা রনির জামিন বাতিল করে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। গতকাল ঢাকার মহানগর হাকিম শাহরিয়ার মাহমুদ আদনান এ আদেশ দেন। জামিন বাতিলের আদেশে উল্লেখ করা হয়, সাংসদ রনি জামিনে যেয়ে মামলার বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হত্যার হুমকি দিয়েছেন। জামিনে গিয়ে জামিনের শর্ত ভঙ্গ করেছেন আসামি সাংসদ রনি। যে কারণে তার জামিন বাতিল করে তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হলো। আসামি রনির আইনজীবী কবির হোসেন ও আব্দুল্লাহ আল মুনসুর রিপন আদালতকে বলেন,‘ সাংসদ রনি জামিনে গিয়ে জামিনের কোনও শর্ত ভঙ্গ করেননি। তিনি কোনও ভাবেই মামলার বাদীকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হত্যার হুমকি দেননি। জিডিতে সাংসদ রনির বিরুদ্ধে যে অভিযোগ আনা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। আর জিডির প্রতিবেদনও সুষ্ঠু হয়নি। ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় প্রথমে জজ মিয়া নামের একজনকে আসামি করা হয়েছিল। পুলিশ কর্মকর্তারাই এ নাটক বানিয়েছিল। সাংসদ রনির বিরুদ্ধে যে তদন্ত প্রতিবেদন দেওয়া হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। পুলিশের এ প্রতিবেদন বিশ্বাস যোগ্য নয়।’ তারা আদালতকে আরো বলেন,‘ সাংসদ রনি টিএসসিতে যে বাদীকে হত্যার হুমকি দিয়েছেন তার কোনও সত্যতা নেই। সম্পূর্ণ মিথ্যা অভিযোগ এনেছে বাদী। যে কারণে বাদী আসামির জামিন চেয়ে যেয়ে আবেদন করেছেন তা খারিজ করা হোক।’ অপরদকি বাদীর আইনজীবী আজিজুর রহমান এবং ঢাকার মহানগর পুলিশের সহকারী কমিশনার মিরাস উদ্দিন আদালতকে বলেন,‘ জামিনে যাওয়ার পর সাংসদ রনি মামলার বাদী ইউনুছকে ক্রমাগত হত্যার হুমকি দিয়েছেন। যা জিডির প্রতিবেদনে স্পষ্ট উল্লেখ রয়েছে। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে আসামি রনির জামিন বাতিল করা হোক।’

জিডির প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, সাংসদ রনি গত ২৩ জুলাই টিএসসি এলাকায় মামলার বাদী ও প্রসিত ঘোষ নামের এক ব্যক্তিকে মামলা তুলে নেয়ার জন্য হত্যার হুমকি দেন। মামলার সুষ্ঠু তদন্তের স্বার্থে সাংষদ রনির জামিন বাতিল করা জরুরি। গত ২০ জুলাই শনিবার দুপুরে ইনডিপেনডেন্ট টিভি চ্যানেলের দুই সংবাদকর্মীকে পেটান আওয়ামী লীগের সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি। যে দুই সাংবাদিককে পেটানো হয় এরা হলেন ইনডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের প্রতিবেদক ইমতিয়াজ মোমিন এবং ক্যামেরাম্যান মহসীন মুকুল। ইনডিপেনডেন্ট টিভি চ্যানেলের সহকারী ব্যবস্থাপক ইউনুছ আলী গোলাম মাওলা রনির বিরুদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা করেন। সংসদ সদস্য রনি ইনডিপেনডেন্ট টিভি চ্যানেলের অন্যতম মালিক সালমান এফ রহমান, দুই সাংবাদিকের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত ৪০ জনের বিরদ্ধে শাহবাগ থানায় মামলা করেন।