জাতীয় ঢাকা

‘পাপে জর্জরিত বাংলাদেশ’

shahjana-khan20130724090123হটনিউজ২৪বিডি.কম,ডেস্ক রিপোর্ট,ঢাকা : যে ঘরে পাপ থাকে, কলংক থাকে, সে পরিবারের উন্নতি ঘটে না। একাত্তরের ঘাতক এবং ধর্ষকদের বিচার না হওয়ায় একইধরনের পাপে জর্জরিত আমাদের বাংলাদেশ।
সে জন্যে শত সম্ভাবনা সত্ত্বেও বাংলাদেশ তার গন্তব্যে এগুতে পারেনি যথাযথভাবে। সেই পাপ আর কলংক মুক্ত করে ২০২১ এর মধ্যে বাংলাদেশকে মাঝারি ধরনের উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার স্বপ্ন পূরণে একাত্তরের ঘাতকদের বিচার শুরু হয়েছে। সেই বিচার শেষ না হওয়া পর্যন্ত আওয়ামী লীগ তথা মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকলকে ইস্পাতদৃঢ় ঐক্য রাখতে হবে। এমন অভিমত পোষণ করেন বাংলাদেশের নৌ পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান।
২৩ জুলাই সন্ধ্যায় নিউইয়র্কে আওয়ামী লীগের এক আলোচনা সভায় তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্যে আরো বলেন, পঁচাত্তরের ১৫ আগস্ট কালো রাতে বঙ্গবন্ধুকে যারা হত্যা করেছিল, তারাও জাতির কলংক এবং পাপী ছিলো। সেই পাপীদের বিচারও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনাকেই করতে হয়েছে।
মাদারীপুরের সন্তান শাহজাহান খান এমপি তার শৈশবের স্মৃতি রোমন্থনকালে বলেন, আমার বাবা আওয়ামী লীগের সভাপতি ছিলেন। সে জন্যে বঙ্গবন্ধু আমাদের বাড়ি যেতেন। সে সময় তিনি আমাকে অনেক আদর-স্নেহ করতেন। আমি স্কুলে পড়তাম। রাজনীতি বুঝতাম না। তবুও তিনি আমার কাছে স্নেহে জানতে চাইতেন এলাকার মানুষেরা কেমন আছে।
শাহজাহান খান বলেন, আওয়ামী পরিবারের লোকজনের স্বাধীনতার জন্যে যে ত্যাগ তা হৃদয়ে লালন ও ধারণ করেই সম্মুখে এগুতে হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সে মনোভাবেই কাজ করছেন।
সে কারণে বাংলাদেশ এখন বিশ্বে পঞ্চম দেশে পরিণত হয়েছে অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির ক্ষেত্রে। বাংলাদেশ খাদ্যে স্বয়ংসম্পন্ন হয়েছে। শিক্ষা ও নারী ক্ষমতায়নে বাংলাদেশ এখন অনেক দেশের মডেল হিসেবে পরিগণিত হয়েছে।
অনুষ্ঠানে হাইমচর উপজেলা চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান মিয়া বলেন, বলতে দ্বিধা নেই যে, আমরা যারা বাংলাদেশে রয়েছি তারা রাজনীতি করি পকেট ভর্তির জন্যে, আর এই প্রবাসে রাজনীতি করছেন নিজের পকেট ওজাড় করে। বাঙালির জাতিগত এই প্রেরণার শিক্ষক হচ্ছেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব।