জাতীয় বরিশাল

দলিল করতে ঘুষ দিতে হয় সাব রেজিষ্ট্রারকে

jhalakathi-mapআজমীর হোসেন তালুকদার, ঝালকাঠি:ঝালকাঠি সাব রেজিষ্ট্রি অফিসে চলছে দূর্নীতির মহোৎসব। এখানে প্রতি দলিলে জমির বিক্রয় মূল্যের উপর ২% থেকে ৩% উৎকোচ প্রদান করতে হয় সদর উপজেলার সাব রেজিষ্ট্রারকে।দলিল লেখকদের একটি সূত্র জানায়, বিগত দিনে তারা ২% ঘুষ দিতো সাবরেজিষ্ট্রারকে । কিন্তু বর্তমান সাবরেজিষ্ট্রার সৈয়দ নজরুল ইসলাম ঝালকাঠিতে যোগদানের পর হতে তিনি প্রতি দলিলে ৩% ঘুষ দাবী করেন।

গত ২১ জুলাই দলিল লেখকরা এ কারনে আন্দোলনে যেতে চাইলে গোপন রুদ্ধদার বৈঠকে দলিল লেখক ও সাব রেজিষ্ট্রারের মধ্যে একটি সমঝোতা হয়। এ কারনে ধর্মঘটের কর্মসূচী স্থগিত করে দলিল লেখকরা। তবে কত পারসেন্টিজের মাধ্যমে এই সমঝোতা হলো তা জানা যায়নি।

প্রথমে দলিল লেখকদের পক্ষ হতেই সাংবাদিকদের ধর্মঘটের কথা জানানো হলেও সমঝোতার পরে দলিল লেখকরা বিষয়টি চেপে যান। এখানে দলিল করতে আসা গ্রাহকরা জানান, সমঝোতা যাই হোক না কেন, পার্সেন্টিজের টাকা তো আমাদের উপর থেকেই উঠানো হবে।

গ্রাহকরা জানান দলিল করতে হলে সরকারী ফি’র বাইরে ১ লাখ টাকায় ২/৩ হাজার টাকা পার্সেন্টিজ দিতে হয় রেজিষ্ট্রি অফিসকে। এরপর রয়েছে দলিল লেখকদের পার্সেন্টিজ। সবমিলিয়ে দলিল করতে সরকারী নিয়মে যে কয়টাকা ব্যায় হবার কথা তার চেয়ে অনেক বেশী টাকা গচ্ছা দিতে হচ্ছে গ্রাহকদের।

তারা এই ধরনের জুলুম বন্ধ করার দাবী জানিয়েছেন। এদিকে সমঝোতা বৈঠক সম্পর্কে জানতে চাইলে ঝালকাঠি দলিল লেখক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম বলেন, পেশকার কিছু দাবী দাওয়া করেছিলো সে ব্যাপারে সাব রেজিষ্ট্রারের সাথে আলোচনা হয়েছে।

অপরদিকে প্রতি দলিল থেকে র্নিদিষ্ট পরিমান পার্সেন্টিজ নেয়া প্রসঙ্গে ঝালকাঠি সদর উপজেলার সাবরেজিষ্ট্রার সৈয়দ নজরুল ইসলাম বলেন, ‘নাউজিবিল্লাহ’ পর্সেন্টিজ নেয়ার কোন প্রশ্নই ওঠেনা।