খুলনা জাতীয় নড়াইল যশোর শিক্ষাঙ্গন

নড়াইলে ৩০০ টাকার জন্য সৎমা ও বাবা নির্যাতনে স্কুল ছাত্রের মৃত্যু

unnamedউজ্জ্বল রায়, নড়াইল জেলা প্রতিনিধি:  নড়াইলে মাকড়াইল গ্রামে সৎমায়ের নির্যাতনে চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র আশিক মোল্যার (১০) মৃত্যু হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।(৫ অক্টোবর) গভির রাতে এ ঘটনা ঘটে। আশিক মাকড়াইল গ্রামের দিনমজুর মিন্টু মোল্যার ছেলে। আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায়ের পাঠানো তথ্যর ভিতিতে জানা যায় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মাকড়াইল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র আশিক বুধবার দুপুরে কালিশংকরপুর এলাকায় অনুষ্ঠিত মেলা দেখার জন্য সৎমা আফরোজা বেগমের কাছে ৩০০ টাকা চায়। তবে, আফরোজা টাকা দিতে অস্বীকার করেন। এই টাকা আশিক প্রতিবেশির পাটের আঁশ ছাড়িয়ে জমিয়ে ছিলো। টাকা না পেয়ে আশিক রাগ করে দুপুরের খাবার না খেয়ে বাড়ির পাশে চুপচাপ বসেছিল। বিষয়টি জানার আশিকের বাবা মিন্টুও ছেলেকে গালমন্দ করেন। এ সময় সৎমা এবং বাবা দু’জনেই আশিককে মারধর করেন। পরবর্তীতে বিকেলে আবারো টাকা দাবি করলে আশিকের সৎমা তাকে লাথিসহ মারধর করলে ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে তার মৃত্যু হয়। মৃত্যুর বিষয়টি ধামাচাপা দিতে ঘরের মধ্যে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আশিককে ঝুঁলিয়ে রাখা হয়। ঝুলন্ত লাশের পাশ থেকে একটি চিরকুট উদ্ধার করা হয়েছে। চিরকুটে সৎমা সর্ম্পকে আবেগময় এবং ক্ষোভের অনেক কথা লেখা আছে। এলোমেলো হাতে লেখা ওই চিরকুটটি তার লেখা নাকি অন্য কারোর, তা নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

unnamed

এদিকে প্রতিবেশিরা জানান, আশিকের দেড় বছর বয়সের সময় তার মা তাকে রেখে অন্যত্র সংসার করছেন। থানার এসআই নূর মোহাম্মদ,আমাদের নড়াইল জেলা প্রতিনিধি উজ্জ্বল রায় কে জানান, বৃহস্পতিবার সকালে লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, আশিক আত্মহত্যা করেছে। তবে, ময়নাতদন্ত রিপোর্টের পর বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যাবে।