খুলনা জাতীয়

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি প্রদান

Chuadanga Picture---( RAB camp Saroklipi)--21.07.13চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি:চুয়াডাঙ্গা থেকে র‌্যাব ক্যাম্প প্রত্যাহারের প্রতিবাদে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর কাছে স্মারক লিপি প্রদান করেছে জেলার সম্মিলিত নাগরিক সমাজ। রবিবার বেলা ১২ এ টায় জেলা প্রশাসকের কর্যালয়ে উপস্থিত হয়ে স্মারকলিপি প্রদান করেন চুয়াডাাঙ্গার সচেতন নাগরিক সমাজ । এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা মুুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার নুরুল ইসলাম মালিক, চুয়াডাঙ্গা উদীচী জেলা সংসদের সভাপতি এ্যাডভোকেট নওশের আলী, সাধারণ সম্পাদক হাবিবি জহির রায়হান, জেলা বিএনপির সাংগাঠনিক সম্পাদক সরদার আলী হোসেন, প্রেসক্লাব চুয়াডাঙ্গার সাধারন সম্পাদক মরিয়ম শেলী ও অরিন্দম সাংস্কৃতিক সংগঠনের সভাপতি আব্দুল মমিন টিপু।

জেলার ১১১ জন বিশিষ্ট নাগরিকের স্বাক্ষর সম্বলিত স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়, সন্ত্রাস কবলিত রক্তাক্ত জনপদ চুয়াডাঙ্গা থেকে র‌্যাব ক্যাম্প প্রত্যাহার করা হলে চুয়াডাঙ্গায় আবার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হবে । শুরু হবে হত্যা, চাদাবাজীসহ নানান অপরাধ কর্মকান্ড। বিধায় চুয়াডাঙ্গা বাসীর প্রাণের দাবী চুয়াডাঙ্গা থেকে র‌্যাব ক্যাম্প প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত বাতিল করে এলাকাবাসীর যানমালের নিরাপত্তার স্বার্থে চুয়াডাঙ্গায় র‌্যাব ক্যাম্প রাখা হোক।’

এদিকে র‌্যাব-৬ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত উপ-মহাপুলিশ পরিদর্শক (অ্যাডিশনাল ডিআইজি) লোকমান হাকিম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, জনবল সংকটের কারণে চুয়াডাঙ্গা থেকে র‌্যাবের অফিস কয়েক দিনের মধ্যে প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। মেহেরপুরের গাংনীর অফিস থাকবে। অফিস প্রত্যাহারের পর ঝিনাইদহ থেকে চুয়াডাঙ্গা জেলার কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে।

তবে চুয়াডাঙ্গা জেলার সার্বিক আইনশৃঙ্খলার কার্যক্রম পরিচালনা করা হবে ঝিনাইদহ র‌্যাব ক্যাম্পের মাধ্যমে।

এদিকে, র‌্যাব ক্যাম্প প্রত্যাহারের খবরে উদ্বেগ প্রকাশ করে মানবাধিকার কর্মি নুঝাত পারভীন বলেন,, চুয়াডাঙ্গা থেকে র‌্যাব ক্যাম্প সরিয়ে ঝিনাইদহ থেকে কার্যক্রম পরিচালনা করা দুরূহ ব্যাপার। এতে সাধারণ ও শান্তিপ্রিয় মানুষ অনেক দুর্ভোগে পড়বে।

উল্লেখ্য, ২০০৪ সালে র‌্যাব প্রতিষ্ঠার পর পরই চুয়াডাঙ্গা পুলিশ লাইনে ক্যাম্প স্থাপন করে কার্যক্রম শুরু করা হয়। বিগত দিনে তাদের কার্যক্রম মানুষের আস্থা অর্জন করে।