জাতীয় ঢাকা লাইফ স্টাইল সারাদেশ

মন্ত্রী যাত্রী বেশে বাসে

kader1475149318 নিজস্ব প্রতিবেদক,হটনিউজ২৪বিডি.কম : সংসদ ভবনের পাশের বাসা থেকে বের হয়ে সচিবালয়ে অফিস করতে যাবেন মন্ত্রী। জিপ বা কারে নয়, তিনি গণপরিবহনে করে সচিবালয়ে যেতে চাইলেন। এজন্য গেলেন আসাদগেট। সঙ্গে ছিল না প্রটোকল। উঠে পড়লেন প্রেসক্লাবগামী বিআরটিসির দোতলা বাসে। তখন সকাল ৯টা ৫০ মিনিট।

বলা হচ্ছে, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের কথা। তিনি বৃহস্পতিবার সকালে বাসে করে অফিসে যান। বাসে মন্ত্রীকে দেখে চিনতে ভুল করেননি যাত্রীরা। কারণ, তিনি জনদুর্ভোগ লাঘবে সড়কেই অনেক সময় ব্যয় করেন। মন্ত্রী বাসের ওপর ও নিচতলায় ঘুরে যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলেন। এক নারীকে যাত্রীকে জায়গা দিতে নিজের আসন ছেড়ে দাঁড়িয়ে থাকেন মন্ত্রী।

ওই বাসে ৫০ মিনিট ছিলেন মন্ত্রী। ১০টা ৪০ মিনিটে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে নামেন তিনি। বেলা ১২টা ৩৫ মিনিটে আবার ফার্মগেট থেকে আরেকটি বিআরটিসি বাসে চড়েন। ১টা ১৫ মিনিটে আব্দুল্লাহপুরে নামেন।

সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের জ্যেষ্ঠ তথ্য কর্মকর্তা আবু নাসের জানান, আসাদগেট থেকে প্রেসক্লাবে যাওয়ার সময় ওই গাড়িতে থাকা শিক্ষার্থী ও সাধারণ যাত্রীরা বিআরটিসি বাসের সেবার মান নিয়ে অভিযোগ করেন।

শিক্ষার্থীদের অভিযোগ, তাদের কাছে প্রায়ই পুরো ভাড়া দাবি করা হয়। তবে বাসের শ্রমিকরাও যুক্তি দিয়ে বলেছেন, কার্ড না থাকলে তারা পুরো ভাড়া নেন।

kader120160929174108

নারী যাত্রীদের অভিযোগ, তাদের জন্য নির্ধারিত আসনগুলোয় বেশিরভাগ সময় পুরুষরা বসে থাকেন।

আবু নাসের আরো জানান, ওই বাসের বেশিরভাগ ফ্যান নষ্ট ছিল। টিকিট কাটতে গেলে মন্ত্রীকে টিকিট দিতে পারেননি কাউন্টারের লোকরা। টিকিট ছিল না। এসব অব্যবস্থাপনার জন্য তাৎক্ষণিকভাবে বিআরটিসির কমলাপুর স্ট্যান্ডের ম্যানেজার ও পরিচালককে (টেকনিক্যাল) কারণ দর্শাতে বলেন মন্ত্রী।

তবে বাসে করে ফার্মগেট থেকে আব্দুল্লাহপুর যাওয়ার পথে কোনো অভিযোগ পাননি মন্ত্রী। এটা ছিল এসি বাস। দুই মাস আগে মন্ত্রী একবার এই বাসে অভিযান চলান। তখন অনেক অভিযোগ ছিল। এসি চলত না। সিট ভাঙা ছিল। কিন্তু আজ কোনো অভিযোগ আসেনি। এই রুটের বিআরটিসি বাসের ব্যাপারে যাত্রীরা সন্তোষ প্রকাশ করেন বলে জানান আবু নাসের।