জাতীয় ঢাকা

হরতালে কমলাপুরে যাত্রীদের উপচে পড়া ভীড়

2012-08-15-16-52-04-502bd3b42985d-2স্টাফ করেসপন্ডেন্ট,হটনিউজটোয়েন্টিফোরবিডি.কম,ঢাকা: জামায়াতের ডাকা টানা চতুর্থ দিনের হরতালে ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। তবে হরতালে দেশের কোথাও ট্রেনে কোনো অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি বলে জানিয়েছেন কমলাপুর রেলওয়ে স্টেশন মাস্টার সাখাওয়াত হোসেন খান।

প্রথম দু’দিন যাত্রী সংখ্যা কম থাকলে বৃহস্পতিবার সকালে কমলাপুরে প্রতিটি ট্রেনেই যাত্রীদের রয়েছে উপচে পড়া ভীড়। সকাল সাড়ে ৮টা পর্যন্ত ঢাকা ছেড়েছে ৮টি ট্রেন। আর দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে ঢাকায় এসেছে ৭টি ট্রেন।

সকাল ৬টা ২২ মিনিটে খুলনার উদ্দেশে ছেড়ে গেছে সুন্দরবন একপ্রেস, ৬টা ৪০ মিনিটে পারাবত এক্সপ্রেস সিলেটের উদ্দেশে, ৭টা ৩০ মিনিটে তিস্তা এক্সপ্রেস কিশোরগঞ্জের উদ্দেশে, ৬টায় ধূমকেতু এক্সপ্রেস রাজশাহীর উদ্দেশে, মহানগর প্রভাতী চট্টগ্রামের উদ্দেশে পৌনে ৮টায়, রংপুর এক্সপ্রেস সোয়া ৮টায় রংপুরের উদ্দেশে, সোয়া ৮টায় এগারসিন্ধু কিশোরগঞ্জের উদ্দেশে, দিনাজপুরের উদ্দেশে একতা এক্সপ্রেস, ৮টা ২০ মিনিটে ও সাড়ে ৮টায় কর্ণফূলী এক্সপ্রেস চট্টগ্রামের উদ্দেশে কমলাপুর ছেড়েছে।

কমলাপুর রেলওয়ের প্লাটফর্ম স্টেশন মাস্টার কামরুজ্জামান হটনিউজকে জানান, চলতি সপ্তাহের প্রথম দুই হরতালে যাত্রী সংখ্যা কিছুটা কম থাকলেও বৃহস্পতিবার যাত্রীদের উপস্থিতি অনেক বেড়েছে। হরতালের কারণে কোনো ট্রেন বিলম্ব হয়নি। তবে যান্ত্রিক ক্রটি ও অন্যান্য কারণে উত্তরাঞ্চল থেকে আসা ট্রেনগুলো কিছুটা বিলম্বে কমলাপুর এসে পৌছেছে।

যাত্রীদের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, কি করার আছে। বাধ্য হয়ে জীবন ঝুঁকি নিয়েই বাসা থেকে বের হতে হয়েছে। তা না হলে জীবন চলবে কেমনে। অনেকেই আইন করে হরতাল বন্ধের দাবি জানিয়েছেন।

রেলওয়ে নিরাপত্তা বাহিনীর পরিদর্শক মজিবুর রহমান হটনিউজকে বলেন, গত কয়েকমাসে নাশকতার টার্গেট থেকে ট্রেনও বাধ যায়নি। এ কারণে হরতালের দিনগুলোতে তারা বাড়তি সতর্কতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করছেন। কমলাপুর রেল স্টেশনে সন্দেহভাজনদের তল্লাশি করা হচ্ছে।