আন্তর্জাতিক

‘আল্লাহ’ বলায় বিমান থেকে নামিয়ে দেয়া হলো মুসলিম দম্পতিকে

32-290x163আন্তর্জাতিক ॥ হটনিউজ২৪বিডি.কম : বিমানে চড়ে ফ্রান্সের রাজধানী প্যারিস থেকে যুক্তরাষ্ট্রের ওহিও অঙ্গরাজ্যের সিনসিনাটি যাচ্ছিলেন মার্কিন মুসলিম দম্পতি নাজিয়া ও ফয়সাল। এ অবস্থায় বিমানে ‘আল্লাহ’ শব্দ উচ্চারণ করায় তাদের নামিয়ে দেয়া হয় বিমান থেকে।

ঘটনায় তীব্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের মুসলিমদের মধ্যে। বহনকারী ডেল্টা এয়ারলাইন্সের বিরুদ্ধে ইতিমধ্যে অভিযোগও জানিয়েছে মার্কিন মুসলিমদের সংগঠন কাউন্সিল অব আমেরিকান ইসলামিক রিলেশনস (সিএআইআর)।

জানা যায় পাকিস্তান বংশোদ্ভুত মার্কিন দম্পতি ফয়সাল আলি এবং তার স্ত্রী নাজিয়া যুক্তরাষ্ট্রের সিনসিনাটিতে থাকেন। দশম বিবাহ বার্ষিকীতে ফয়সাল চমকে দেয়ার মতো উপহার দিয়েছিলেন স্ত্রী নাজিয়াকে- প্যারিস বেড়াতে যাওয়ার টিকিট। কয়েকটা অসামান্য দিন প্যারিসে কাটিয়ে ডেল্টা এয়ারলাইন্সের প্লেনে চড়ে বসেছিলেন নাজিয়া ও ফয়সাল। কিন্তু আর সুখকর রইল না দশম বিবাহ বার্ষিকীটা।

ফয়সাল ও নাজিয়া প্লেনে ওঠার পর থেকেই সম্ভবত তাদের উপর নজর রাখছিলেন বিমানের এক কর্মী। যাত্রী তালিকায় মুসলিম নাম দেখেই বোধ হয় অতি মাত্রায় ‘সতর্ক’ হয়ে গিয়েছিলেন তিনি। টেক-অফের সময় এগিয়ে আসছিল।

ফয়সাল ও নাজিয়াও নিজেদের একটু গুছিয়ে নিচ্ছিলেন। টানা নয় ঘণ্টার ফ্লাইট। একটা এসএমএস পাঠালেন বাবা-মাকে। যাত্রা শুরুর আগে হয়তো দু’জনেই ‘আল্লাহ’কে স্মরণও করে নিলেন একবার। একটু দূরে দাঁড়িয়ে বিমানের যে কর্মী আড় চোখে নজর রাখছিলেন মুসলিম দম্পতির উপর।

টেক-অফের ঠিক আগে মুসলিম নারী এসএমএস করলেন কেন? কাকে, কী জানাতে চাইলেন? বাইরে থেকে কোনো নির্দেশনা আসবে নাকি? ফয়সালকে দেখে বিমানকর্মীর মনে হল, ফয়জল ঘামছেন। নার্ভাস নাকি? কীসের কথা ভেবে টেনশন হচ্ছে ফয়সালের? এ সব ভাবতে ভাবতেই মুসলিম দম্পতির সিটের দিকে একটু এগিয়ে গেলেন বিমান কর্মী। এ বার শুনতে পেলেন ‘আল্লাহ’ বলছে ফয়সাল ও নাজিয়া।

একটুও সময় নষ্ট না করে পাইলটের কাছে ছুটে যান ওই বিমান কর্মী। তাকে জানান নিজের আতঙ্কের কথা। বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে পাইলট জানিয়ে দেন, নাজিয়া ও ফয়সালকে নামিয়ে দেয়া না হলে তিনি টেক-অফ করবেন না। ব্যস, নেমে যেতে হলো তাদের।