ঢাকা প্রধান খবর

আমরা ক্ষমতায় থাকতেই রায় কার্যকর হবে

PM20130716100703নিজস্ব প্রতিবেদক,হটনিউজ২৪বিডি.কম,ঢাকা: জামায়াতের সাবেক আমীর গোলাম আযমের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের দেয়া সাজায় সন্তোষ প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।মঙ্গলবার দুপুরে ৯ম জাতীয় সংসদের ১৮তম অধিবেশনের সমাপ্তি বক্তব্যে তিনি এ সন্তুষ্টির কথা জানান।তিনি বলেন, আমরা যুদ্ধপারাধীদের বিচার করার কথা দিয়েছিলাম। সেই বিচার শুরু হয়েছে। বিচারের রায়ও দেওয়া শুরু হয়েছে। গতকাল গোলাম আযমের রায় দিয়েছে আদালত।তার বিরুদ্ধে পাঁচটি অভিযোগই প্রমাণিত হয়েছে। আদালত সাজা দিয়েছে। রায়ে জামায়াতকে দেশদ্রোহী বলা হয়েছে। তারা যে শাস্তি দিয়েছে এতে আমরা সন্তুষ্ট।

আমাদের দীর্ঘদিনের একটি অঙ্গীকার ছিল। আমরা সেটি করতে সফল হয়েছি। আমরা ক্ষমতায় থাকতে এ রায় বাস্তাবায়ন করে যেতে পারাবো ইনশাল্লাহ।
বিচার নিয়ে সমালোচক প্রতি দৃষ্টি আকর্ষণ করে তিনি বলেন, যারা রায়ের সমালোচনা করেন তাদের অনেকেইতো যুদ্ধাপরাধীদের সঙ্গে হাত মিলিয়েছিলেন।
গোলম আযমরা যুদ্ধের সময় পাকিস্তানী পাসপোর্ট নিয়ে পাকিস্তানে চলে গিয়েছিলেন। মেজর জিয়া যুদ্ধাপারাধীদের দেশে ফিরিয়ে এনেছেন। তাদের মন্ত্রী করেছেন।
তাদের গাড়িতে জাতীয় পতাকা তুলে দিয়েছিলেন। শাহ আজিজুর রহমান, আব্দুল আলীম ও আব্দুল মান্নানের মত রাজাকারদের মন্ত্রী করেছিলেন।
বিএনপি সংসদে না আসায় এর সমালোচনা করে তিনি বলেন, গতকাল জামায়াতের হরতাল ছিল সেই হরতালের সমর্থন দিয়ে সংসদে আসেননি বিএনপি।
গতকাল গোলাম আযমের রায় হয়েছে। জামায়াত হরতাল দিয়েছে। জামায়াতের প্রতি সহানুভ’তি দেখিয়ে আজ সংসদে আসেননি।
জামায়াতের প্রতিতো তারা সহানুভ’তি হবেনই। ২০০১ সালে বিএনপি তাদেরকে মন্ত্রী বানিয়েছে। তাদের গাড়িতে পতাকা তুলে দিয়েছে।
নির্বাচন কমিশনকে বর্তমান সরকার স্বাধীন করে দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান সরকার নির্বাচন কমিশনকে স্বাধীন করে দিয়েছে। তারা স্বাধীনভাবে কাজ করছেন।
বর্তমান সরকারের সময়ে যতগুলো নির্বাচন হয়েছে সবগুলো সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ হয়েছে। আমরা গণতান্ত্রিক ধারাকে অব্যাহত রাখতে চায়।
আওয়ামী লীগ নির্বাচনে হেরে গেলেও নির্বাচনের কোন ধরনের প্রভাব বিস্তার করেনি। তিনি বিএনপির সময়ে নির্বাচনগুলো কখন সুষ্ঠু হয়নি। তখন নির্বাচন হতো পাঁচটি হোণ্ডা ১০জন গুণ্ডা। এই ছিল নির্বাচন।
নারীদেরক তেঁতুলের সঙ্গে তুলনা করে হেফাজতে ইসলামীর আমির শাহ আহমেদ শফী যে বক্তব্য দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী তার সমালোচনা করেন।