জাতীয় রংপুর

কুড়িগ্রামের বানভাসীদের দুর্ভোগ কমেনি

DSC09929ডাঃ জি এম ক্যাপ্টেন, কুড়িগ্রামঃকুড়িগ্রামে নদ-নদীর পানি কমতে শুরু করলেও এখনও তলিয়ে আছে চর-দ্বীপচর ও 
নিচু এলাকার ঘর-বাড়ী। বসতবাড়ী থেকে পানি নেমে না যাওয়ায় দুর্ভোগ কমেনি বানভাসীদের। অনেক পরিবার খেয়ে না খেয়ে রমজানের রোজা পালন করছে।
বন্যায় গত ১ সপ্তাহ ধরে পানি বন্দী জীবন যাপন করছে কুড়িগ্রামের ৯ উপজেলার ৩৬ ইউনিয়নের নিন্ঞ্চমলের চর-গ্রামের প্রায় লক্ষাধিক মানুষ। বাড়ী-ঘর তলিয়ে যাওয়ায় তারা বাঁশের মাচা ও উচু জায়গায় পরিবার পরিজন নিয়ে অবর্ণনীয় কষ্টে দিন কাটাচ্ছে। সবচেয়ে কষ্টে পড়েছে শিশু ও বৃদ্ধরা। ত্রান সহায়তা না পাওয়ায় চরম খাদ্য সংকটে ভুগছে তারা। তার উপর দেখা দিয়েছে বিশুদ্ধ খাবার পানি ও গো-খাদ্যের সংকট। কোথাও কোথাও দেখা দিয়েছে পানি বাহিত রোগ।ঘর-বাড়ী ও রাস্তা-ঘাট ডুবে থাকায় বন্যার্তরা প্রয়োজনীয় খাদ্য সংগ্রহে বের হতে পারছে না। অনেক পরিবারে চুলাও জ্বলছে না সপ্তাহ ধরে। এ অবস্থায় শুকনো খাবার ও পান্থা ভাত খেয়ে রোজা পালন করছে অনেকেই।কুড়িগ্রাম জেলা প্রশাসক এ বি এম আজাদ, বানভাসীদের জন্য জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ১শ মে. টন চাউল ও ৫ লাখ টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়েছে।

সরকারী ভাবে বন্যার্তদের জন্য যে পরিমান ত্রান সহায়তা দেয়া হয়েছে তা চাহিদার তুলনায় অত্যন্ত অপ্রতুল। এমনকি ক্ষতিগ্রস্থ বেশির ভাগ পরিবারের ভাগ্যে জোটেনি ১ ছটাক চাউল কিংবা অর্থসহায়তা। এ অবস্থায় বানভাসীদের দুর্ভোগ লাঘবে দ্রুত পদক্ষেপ নেবে সরকার এমনটিই প্রত্যাশা ভুক্তভোগীদের।