জাতীয় ঢাকা

বর্ণাঢ্য আয়োজনে মালয়েশিয়া বাংলাদেশ ফোরামের বর্ষবরণ

3fadcd35-583f-4cc0-8268-18e8ff67f951 শামছুজ্জামান নাঈম, মালয়েশিয়াঃ বাঙ্গালী জাতির প্রধান উৎসব পহেলা বৈশাখ এখন ছড়িয়ে পড়েছে বিশ্বের আনাচে কানাচে। তেমনি করে নতুন স্বপ্ন, উদ্যম ও প্রত্যাশার আলোয় রাঙানো নতুন বাংলা বছরকে বরণ করে নিলেন মালয়েশিয়ায় প্রবাসীরা।
রবিবার সকালে কুয়ালালামপুরে ক্রাফট কালচারাল সেন্টারে ‘মালয়েশিয়া বাংলাদেশ ফোরাম অ্যাসোসিয়েশ’ এর উদ্যোগে আয়োজন করা হয় বাংলা নববর্ষ ১৪২৩।
অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ফকরুল ইসলাম শুভ’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়ার ট্যুরিজম অ্যান্ড কালচারাল মন্ত্রী ওয়াইবি দাতু শ্রী মো. নাজরি বিন আব্দুল আজিজ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মালয়েশিয়ায় নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. শহিদুল ইসলাম, ক্রাফট মালয়েশিয়ার ডিরেক্টর জেনারেল পোয়ান হাজা জুরাইদা বিনতে মুক্তার।
বর্ষবরণ অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে বাংলাদেশিদের ভ্রাতৃত্ববোধ, দেশের প্রতি টান দেখে অভিভূত হন মন্ত্রী ওয়াইবি দাতু শ্রী মো. নাজরি বিন আব্দুল আজিজ।
সংগঠনের আয়োজনে ছিল বৈশাখী মেলা, পিঠা-পুলি, মনোমুগ্ধকর নাচ-গান। অনুষ্ঠানে প্রবাসি বাঙালিদের পাশাপাশি মূলধারার প্রভাবশালী রাজনৈতিক নেতা এবং কমিউনিটি নেতাদের উপস্থিতি ছিলো দেখার মতো। জাতি-ধর্ম-বর্ণ-গোত্র নির্বিশেষে সার্বজনীন উৎসব নববর্ষ উদযাপনে একসঙ্গে সবাই গেয়েছেন ‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো’।
মেয়েরা খোঁপা আর বেণীতে ফুল গুঁজে রঙ-বেরঙের শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ পোশাক পরে হাতভরা চুড়ি আর ছেলেরা পাঞ্জাবি, ফতুয়া পরে আনন্দে মেতে উঠেছিল।
অনুষ্ঠানে প্রবাসীদের জন্য ইলিশ মাছ, পান্তা, সাদা ভাত, ডাল, আলু ভর্তা, বেগুন ভর্তা, চেপা ভর্তা, ব্রকলি ভর্তা, পায়েস, কাঁঠাল বিচি ভর্তা, লাল মরিচ ভাঁজাসহ রকমারি দেশীয় খাবারের আয়োজন করা হয়েছিল।
মেলায় সঙ্গীত পরিবেশন করেন সঙ্গীত শিল্পী ফরিদা পারভীন, শূন্য ব্যান্ড ও মালয়েশিয়ায় বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীরা।
অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন বাংলাদেশের খ্যাতিমান উপস্থাপক আব্দুন নূর তুষার। তাকে সহযোগিতা করেন মালয়েশিয়ার ইউএম ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত শিক্ষার্থী নাজিফা ও মইনুল।
আরো উপস্থিত ছিলেন ডেপুটি হাইকমিশনার মো. ফয়সাল আহমেদ, কাউন্সিলার (শ্রম) মো. সায়েদুল ইসলাম, কন্স্যুলার (পলিটিক্যাল) রইস হাসান সারোয়ার, দূতাবাসের কমার্শিয়াল উইং ধনঞ্জয় কুমার দাস, ফার্স্ট সেকেটারি (শ্রম) শাহিদা সুলতানা, ফার্স্ট সেক্রেটারি মুশরাত জেবিন ও কমিশনের কর্মকর্তারা।
অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন অ্যাসোসিয়েশনের সহ-সভাপতি ডা. শংকর পোদ্দার, প্রফেসর ড. মোহাম্মাদ আবুল বাশার, প্রফেসর ড. আব্দুল কুদ্দুস, অ্যাসোসিয়েশনের সকল সদস্য ও মালয়েশিয়ায় বিভিন্ন কলেজ-ইউনিভার্সিটিতে অধ্যয়নরত বাংলাদেশি শিক্ষক-শিক্ষার্থী, মালয়েশিয়া বাংলাদেশ কমিউনিটি প্রেসক্লাব এর সদস্যগণ ও বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার মানুষ।