অর্থ ও বাণিজ্য জাতীয় ঢাকা প্রধান খবর

ওয়ালটন এলইডি টিভিতে ‘বৈশাখী টর্নেডো অফার’

index নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলা নতুন বর্ষ শুরু হতে আর মাত্র কয়েকদিন বাকি। বৈশাখকে স্বাগত জানাতে নানা রকম প্রস্তুতি নিচ্ছে সর্বস্তরের মানুষ। বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসব ’পহেলা বৈশাখ’কে উদযাপন করতে সব বয়সের মানুষ ভিড় করছেন শপিং মলগুলোতে। পহেলা বৈশাখের ঐতিহ্যবাহী খাবার পান্তা ইলিশ দিয়ে নতুন বর্ষ শুরু করতে ইতোমধ্যে সবাই ভিড় করছেন মাছ বাজারে। ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলোও বাংলা নতুন বর্ষে গ্রাহকদের নতুন কিছু উপহার দিতে ঘোষণা দিচ্ছে নানা রকম অফার। এদিক দিয়ে পিছিয়ে নেই দেশের শীর্ষস্থানীয় ইলেকট্রনিক্স ব্র্যান্ড ওয়ালটন। পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে এলইডি টিভিতে ’বৈশাখী টর্নেডো অফার’ ঘোষণা করেছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ। এর আওতায় দেশব্যাপী ওয়ালটন এলইডি টিভিতে  গ্রাহকরা পাবেন সর্বোচ্চ ৩০০০ টাকা পর্যন্ত বিশেষ ছাড়।
ওয়ালটন সূত্রমতে, ’বৈশাখী টর্নেডো অফার’ এর আওতায় গত বুধবার ১০’টিরও বেশি মডেলেরর এলইডি টিভিতে বিশেষ ছাড় ঘোষণা করেছে কর্তৃপক্ষ। বৈশাখী উৎসব উপলক্ষ্যে গ্রাহকরা এখন ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ১৯ ইঞ্চি এলইডি টিভি আগের চেয়ে ৩০০ টাকা কমে মাত্র ১১,৬০০ টাকায় পাচ্ছেন। ১০০০ টাকা কমেছে ২৪ ইঞ্চি এলইডি টিভিতে, এখন মিলছে ১৩,৯০০ টাকায়। ২৮ ইঞ্চি এলইডি টিভির দাম আগের চেয়ে ১০০০ টাকা কমিয়ে এখন নির্ধারণ করা হয়েছে মাত্র ১৯,৯০০ টাকা। ৩২ ইঞ্চি এলইডি টিভিতে দাম কমানো হয়েছে ১০০০ টাকা, এখন ক্রেতারা পাচ্ছেন ২১,৯০০ টাকায়। ৪০ ইঞ্চি এলইডি টিভিতে ৯০০ টাকা বিশেষ ছাড় দিয়ে নতুন মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৩৩,৯০০ টাকা । ওয়ালটন ব্র্যান্ডের ৪৩, ৪৯ ও ৫৫ ইঞ্চির এলইডি টিভিতে দাম কমানো হয়েছে ১০০০ টাকা থেকে ৩০০০ টাকা পর্যন্ত। ক্রেতারা এখন ওয়ালটনের ৪৩ ইঞ্চি এলইডি টিভি  আগের চেয়ে ১০০০ টাকা কমে ৪২,৯০০ টাকায় পাচ্ছেন। ৪৯ ও ৫৫ ইঞ্চির এলইডি টিভিতে যথাক্রমে ২০০০ ও ৩০০০ টাকা বিশেষ ছাড় ঘোষণা করা হয়েছে। এই দুটি মডেলের টিভির দাম এখন যথাক্রমে ৫৭,৯০০ টাকা ও ৭০,৯০০ টাকা।
উল্লেখ্য, চলতি বছরের প্রথম তিন মাসে এলইডি টিভির দাম কয়েক দফা কমিয়েছে ওয়ালটন কর্তৃপক্ষ। কারখানায় উচ্চমানের মেশিনারিজ সংযোজন এবং ক্রমবর্ধমান চাহিদা বৃদ্ধির প্রেক্ষিতে উৎপাদন বেড়ে যাওয়ায় কমেছে পণ্য উৎপাদনের খরচ। আর গ্রাহক পর্যায়ে এই সুফল পৌঁছে দিতেই দাম কমানো হয়েছে কয়েক দফা। সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের ফলে ওয়ালটন এলইডি টিভির দাম একদিকে কমছে অন্যদিকে গুনগত মান আগের চেয়ে আরো উন্নত হয়েছে। উৎপাদন পর্যায়ে মান নিয়ন্ত্রণে অনুসরণ করা হচ্ছে ’জিরো টলারেন্স’ নীতি।
জানা গেছে, উৎপাদন প্রক্রিয়ায় বিশ্বের অত্যাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার, আন্তর্জাতিক মানের নিশ্চিয়তা, আকর্ষণীয় ডিজাইন ও কালার, সাশ্রয়ী মূল্য, ছয় মাসের রিপ্লেসমেন্ট ওয়ারেন্টি, প্যানেল ও খুচরা যন্ত্রাংশে দুই বছরের ওয়ারেন্টি এবং সর্বোপরি দেশব্যাপী বিস্তৃত সেলস ও সার্ভিস নেটওয়ার্ক থাকায় ওয়ালটন এলইডি টিভিতে গ্রাহকদের আস্থা অনেক বেড়েছে।
এ প্রসঙ্গে ওয়ালটনের নির্বাহী পরিচালক ও বিপণন বিভাগের প্রধান এমদাদুল হক সরকার বলেন, আগে বাংলাদেশে বৈশাখী হালখাতা উপলক্ষ্যে গ্রাহকদের জন্য নানা রকমের আয়োজন করা হতো ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠানগুলো। এখন এই চিত্রটা অনেক পরিবর্তন হয়েছে। চিত্র বদলালেও, গ্রাহকদেরকে বাংলা নববর্ষের উপহার দিতে ভুলেনি ওয়ালটন। আর সেজন্যই এলইডি টিভির দামে বিশেষ ছাড় দিতে ঘোষণা করা হয়েছে ’বৈশাখী টর্নেডো অফার’।
গ্রাহকদের হাতে বাজারের সবচেয়ে সাশ্রয়ী মূল্যে উচ্চ প্রযুক্তির এলইডি টিভি তুলে দেয়াই ওয়ালটনের অন্যতম উদ্দেশ্য। এক্ষেত্রে ওয়ালটন অনেকটাই সফল হয়েছে বলে জানান তিনি। চলতি বছরে কয়েক দফা দাম কমানোর ফলে উচ্চ প্রযুক্তির এলইডি টিভি এখন সকল শ্রেণী, পেশার ক্রেতাদের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে এসে গেছে।
গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন মাইক্রো-টেক করপোরেশনে এলইডি টিভির প্লাস্টিক কেবিনেট, স্পীকার, রিমোট কন্ট্রোল ইউনিট, মাদার বোর্ড, ইলেকট্রিক পাওয়ার ক্যাবল এবং প্যানেল প্রডাকশনের জন্য স্থাপন করা হয়েছে পৃথক ম্যানুফাকচারিং লাইন। স্থানীয় পর্যায়ে উৎপাদন শুরু পর থেকেই ওয়ালটন এলইডি টিভির প্রতি গ্রাহকদের চাহিদা ও আস্থা ব্যাপক বেড়েছে। আর চাহিদার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে উৎপাদন বৃদ্ধি পাওয়ায় এবং সর্বাধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করায় কমছে টেলিভিশন প্রতি উৎপাদন খরচ। এরই সুফল গ্রাহক পর্যায়ে পৌঁছে দিতে ওয়ালটনের দাম কমানোর এই উদ্যোগ।
ওয়ালটনের প্রকৌশলীরা জানান, নতুন ও আধুনিক প্রযুক্তিতে তৈরি এন্ড্রয়েড স্মার্ট টিভিতে রয়েছে ইউএসবি পোর্ট, ভিজিএ পোর্ট, এইচডিএমআই, ওয়াইপিবিআর, এভি,  ইন্টারনেট ব্রাউজিং ও ডাউনলোড, ওয়াইফাই, ব্রডব্যান্ড কানেকশন, ইন্টারনেটে গেমস এবং ভিডিও ও ছবি দেখাসহ আরো অনেক সুবিধা। যার ফলে ওয়ালটন টিভি অন্য ব্র্যান্ডগুলোর চেয়ে এগিয়ে।
ওয়ালটনের সোর্সিং ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের ফার্স্ট সিনিয়র ডেপুটি ডিরেক্টর প্রকৌশলী মোস্তফা নাহিদ হোসেন অভী জানান, অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে নিজস্ব মান নিয়ন্ত্রণে তৈরি হচ্ছে ওয়ালটন ব্র্যান্ডের এলইডি টিভি। পণ্যের গুণগতমান নিশ্চিত ও গ্রাহকদের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে রেখে ওয়ালটন বাজারে এনেছে এইচডি, এইচডি রেডি ও এফএইচডি রেজ্যুলেশনের বিভিন্ন সাইজের এলইডি টিভি।
ওয়ালটন এখন তৈরী করছে ১৯ ও ২৪ ইঞ্চির ৮’টি মডেলের কালার লাইন টিভি। ওয়ালটন এলইডি টিভিতে ব্যবহার করা হচ্ছে আইপিএস (ইন প্ল্যান সুইচিং), এডিএস (এ্যাডভান্স সুপার ডাইমেনশন সুইচ) এবং এইচএডিএস (হাই এ্যাডভান্স সুপার ডাইমেনশন সুইচ)) প্রযুক্তির প্যানেল। এর ফলে দর্শকরা ওয়াইড ভিউয়িং এ্যাঙ্গেল এবং হাই কন্ট্রাস্ট এর পিকচার দেখতে পাচ্ছেন। এলইডি টিভির মাদারবোর্ডে সংযোজন করা হয়েছে পাওয়ার সার্জ প্রোটেকশন এবং ইনডিউচড লাইটেনিং প্রোটেকশন সার্কিট, যাকিনা বজ্রপাত ও হাই ভোল্টেজজনিত ক্ষতির হাত থেকে টিভিকে রক্ষা করবে বলে জানান অভী।
এছাড়াও, আইএসও ক্লাস সেভেন ডাস্ট ফ্রি ক্লিন রুম এর সর্বোচ্চ সতর্কতা ও গুণগতমান রক্ষা করে তৈরী করা হচ্ছে এলইডি টিভি প্যানেল। ছবি ও শব্দের উচ্চমান নিশ্চিতকরনে ডাইনামিক নয়েজ রিডাকশন, সর্বোচ্চ ফ্রেম রেট, ডলবি ডিজিটাল সাউন্ড সিস্টেম সমৃদ্ধ নিজস্ব ডিজাইনের উন্নত প্রযুক্তির মাদারবোর্ড ব্যবহার করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য, গুণগত উচ্চমানের পাশাপাশি দেশব্যাপী বিস্তৃত সার্ভিসিং নেটওয়ার্ক থাকায় ক্রেতাদের পছন্দের তালিকার শীর্ষে এখন ওয়ালটন। বাংলাদেশে একমাত্র ওয়ালটনেরই রয়েছে আইএসও সনদ প্রাপ্ত সার্ভিস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম। গ্রাহক সেবা দিতে সারা দেশে কাজ করছেন প্রকৌশলী ও টেকনিশিয়ানসহ ১৫শ’রও বেশি দক্ষ ও অভিজ্ঞ কর্মী।
এছাড়াও ওয়ালটনের রয়েছে শক্তিশালী গবেষণা ও উন্নয়ন বিভাগ। যেখানে সময়ের সঙ্গে তাল মিলিয়ে থিম ডেভলপমেন্ট, প্রোডাক্ট ডিজাইন, মোল্ড ডিজাইন এবং মোল্ড তৈরির কাজ করা হচ্ছে। যার ফলে ক্রেতাদের চাহিদা ও আগ্রহ অনুযায়ী নিত্য নতুন প্রযুক্তি, বিভিন্ন কালার ও ডিজাইনের ওয়ালটন এলইডি টিভি বাজারে সরবরাহ করা সম্ভব হচ্ছে।