রাজনীতি

ইউপি নির্বাচন, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর প্রধানদের ডাকবে ইসি

৪৯.নিজস্ব প্রতিবেদক, হটনিউজ২৪বিডি.কম ৫ এপ্রিল : চলমান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে ভোট কারচুপি রোধ এবং সহিংসতা বন্ধে করণীয় ঠিক করতে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর প্রধানদের ডাকছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

আগামী ১৩ এপ্রিল সকালে সংস্থাটির সভাকক্ষে বৈঠকে বসবে কমিশন।

ইসি যুগ্ম সচিব জেসমিন টুলী বলেন, ইতোমধ্যে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীগুলোর প্রধানদের সঙ্গে বৈঠকের জন্য সিদ্ধান্ত নিয়েছে কমিশন। মঙ্গলবার থেকেই সংশ্লিষ্টদের কাছে বেঠকে উপস্থিত থাকার জন্য চিঠি দেওয়া হবে। প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী রকিবউদ্দীন আহমদের সভাপতিত্বে বৈঠকটি অনুষ্ঠিত হবে।

এর আগে ইউপি নির্বাচন নিয়ে গত বৃহস্পতিবার আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সঙ্গে বৈঠক করে কমিশন। তবে সে বৈঠকে বিভিন্ন সংস্থার প্রধানদের সবাই উপস্থিত ছিলেন না। সেদিনের বৈঠকে নির্বাচন কমিশন সংহিসতা রোধে ব্যাপক সংখ্যক ফোর্স মোতায়েনের সিদ্ধান্ত নেয়। একইসঙ্গে সহিংসতা ও ভোট কারচুপি রোধে প্রয়োজনে গুলি চালানোর জন্যও নির্দেশনা দেয়।

কিন্তু এরই মধ্যে দুই ধাপের নির্বাচনে সহিংসতায় অন্তত ৩০ জন নিহত হন। এছাড়া পুলিশ, নির্বাচন কর্মকর্তাসহ অন্তত শতাধিক ব্যক্তি আহত হন। ভোট কারচুপির কারণে প্রথম দফায় ৬৫টি ভোটকেন্দ্র এবং দ্বিতীয় দফায় ৩৩টি কেন্দ্রের ভোট বাতিল করা হয়েছে।

এসব ঘটনায় জাতীয় পার্টি ইসির দায়িত্বে থাকার নৈতিকতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে। আবার বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টিসহ অন্যান্য ছোট ছোট দলও বলছে তারা নির্বাচনে শেষ পর্যন্ত থাকতে চায়। কিন্তু সেজন্য কমিশন যেন তার ক্ষমতা সঠিক প্রয়োগ করে। সোমবার ২০ দলীয় জোটের সঙ্গে বৈঠক শেষে বিএনপিও একই কথা জানায়।

এই অবস্থায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) সংবাদ সম্মেলনে বারবার করে হুঁশিয়ারি দিয়ে যাচ্ছেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যসহ কেউ যাতে নির্বাচনে দায়িত্বে অবহেলা না করেন। কিন্তু তাতে কোনো কাজ হচ্ছে না বলে মন্তব্য করছেন খোদ ইসির কর্মকর্তারা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কর্মকর্তারা জানান, কমিশন আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তৎপরতা নিয়ে হতাশ। যে কারণে বিভিন্ন বাহিনীর সঙ্গে আবারো বৈঠক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

তবে বৈঠকে সেনাবাহিনীর কেউ থাকছে না বলে জানান যুগ্ম সচিব জেসমিন টুলী। এছাড়া পুলিশ, র্যা ব, আনসার, কোস্ট গার্ড, বিজিবিসহ অন্যান্য সংস্থার প্রধানদের বৈঠকে উপস্থিত থাকতে বলা হবে।

সারাদেশের নির্বাচন উপযোগী প্রায় সাড়ে চার হাজার ইউপিতে এবার ছয় ধাপে ভোটগ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। ইতোমধ্যে দু’দফার নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। তৃতীয় ধাপের নির্বাচন হবে আগামী ২৩ এপ্রিল।
হটনিউজ২৪বিডি.কম/এআর