অপরাধ কুমিল্লা

তনুর প্রথম ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে ধর্ষণের আলামত নেই

৭.নিজস্ব প্রতিবেদক, হটনিউজ২৪বিডি.কম ৫ এপ্রিল : হত্যার শিকার কুমিল্লা ভিক্টোরিয়া কলেজের শিক্ষার্থী সোহাগী জাহান তনুর প্রথম ময়নাতদন্ত প্রতিবেদনে ধর্ষণের কোনো আলামত পাওয়া যায়নি। এমনকি পাওয়া যায়নি তার মৃত্যুর সুনির্দিষ্ট কোনো কারণও।

তনুর প্রথম ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন পাওয়ার পর সোমবার বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজের (কুমেক) ফরেনসিক বিভাগের প্রধান ডা. কামুদা প্রসাদ সাহা এ তথ্য জানান।

তিনি আরো জানান, পৃথিবীর প্রায় দুই থেকে পাঁচ ভাগ ময়নাতদন্তে মৃত্যুর কোনো সুস্পষ্ট কারণ পাওয়া যায় না।

দ্বিতীয় ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন কখন আসবে তা এখনই বলা যাচ্ছে না বলেও জানান ডা. কামুদা প্রসাদ সাহা।

উল্লেখ্য, ২০ মার্চ রাতে তনুকে ধর্ষণের পর হত্যা করা হয়। ওই দিনগত রাত সাড়ে ১০টার দিকে কুমিল্লা সেনানিবাস এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে জেলার মুরাদনগর উপজেলার মির্জাপুর গ্রামের বাড়িতে তনুকে দাফন করা হয়। হত্যাকাণ্ডের কয়েকদিন পর মামলাটি কুমিল্লা পুলিশের গোয়েন্দা শাখা (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করা হলে মরদেহ পুনঃময়নাতদন্তের জন্য আদালতে আবেদন করা হয়। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা কুমিল্লা ডিবির ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মঞ্জুর আলম এ আবেদন করেন। তার আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে কুমিল্লার অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট জয়নাব বেগম মরদেহ উত্তোলনের আদেশ দেন। ৩০ মার্চ বেলা পৌনে ১২টায় তনুর মরদেহ উত্তোলন করে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পুনঃময়নাতদন্ত করে ওই দিনই পুনরায় দাফন করা হয়। এদিকে, ২৯ মার্চ মামলাটি পুলিশের অপরাধ তদন্ত বিভাগের (সিআইডি) কাছে হস্তান্তর করা হয়।
হটনিউজ২৪বিডি.কম/এআর