জাতীয় ঢাকা

ফসলি জমি দখল করে অবৈধ ভাবে রাস্তা নির্মাণ’

Munshigonj  Photo Road 1সেতু ইসলাম,মুন্সীগঞ্জ:মুন্সীগঞ্জের টঙ্গিবাড়ী উপজেলার ধীপুরে আদালতের আদেশ অমান্য করে অসহায় এক মুক্তিযোদ্ধার ও স্থানীয় বেশ কিছু লোকের ফসলি জমি ও বসতবাড়ী জোরপূর্বক দখল করে রাস্তা নির্মাণের অভিযোগ পাওয়া গেছে। ধীপুর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন শেখ এবং কে-শিমুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান নূর মোহাম্মদের লোকজন জোর করে ফসলি জমিতে এ রাস্তা নির্মাণ করছে বলে জানিয়েছেন ক্ষতিগ্রস্থ্য জমির মালিকরা।জানা গেছে,টঙ্গীবাড়ি উপজেলার শিমুলিয় থেকে ধীপুর ইউনিয়ন পর্যন্ত রাস্তার সংযোগ সড়ক নির্মান করা হচ্ছে সম্পূর্ন অবৈধ ভাবে। সরকারী টাকায় এই রাস্তা নির্মাণকালে জমির মালিকদের সাথে কোন রকম কথা না বলে রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে। রাস্তা নির্মাণে বাঁধা দিলে জমির মালিকদের মারধর করা হয়। রাস্তা নির্মাণের পূর্বে আদালতের নিষেধাজ্ঞা থাকলেও তা মানা হয়নি এখানে। জোর পূর্বক এই রাস্তা নির্মাণ করা হচ্ছে।ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিক মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল বারেক বলেন, চেয়ারম্যান ও তার লোকজন আমার ফসলী জমির মাটি কেটে ও ফসলি জমির উপর দিয়ে অবৈধভাবে রাস্তা নির্মাণ করেছে। এব্যাপারে অভিযোগকারিরা বাঁধা দিলে তাদের উপর চেয়ারম্যানের লোকজন হমলা চালায়। বর্তমানে তারা তাদের ভয়ে কথা বলতে পারছে না। আমরা এই অত্যাচার থেকে রেহাই পেতে চাই। সরকারের কাছে দাবি তাদের জমি ফেরৎ দেয়ার আবেদন করেছেন।

স্থানীয় চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন শেখ বলেন, বেশ কিছু মানুষের প্রানের দাবী এই রাস্তা নির্মাণ করা। তাই তারা দু’ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থা আরও উন্নত করার লক্ষে জমির মালিকদের সাথে কথা বলে রাস্তা নির্মাণ করেছেন এবং রাস্তা নির্মাণ করতে গিয়ে যাদের জমি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, তাদের ক্ষতিপূরন দেয়ার ব্যবস্থাও করা হয়েছে। তবে আদালতের নিষেধাজ্ঞা সম্পর্কে তিনি অবগত নয় বলে জানিয়েছেন।