প্রধান খবর

মৌ চাষে কৃষিতে ১২ ভাগ উৎপাদন বাড়ে

৮.অর্থনীতি ডেস্ক, হটনিউজ২৪বিডি.কম ২৯ ফেব্রুয়ারি : মৌ চাষের কারণে কৃষিখাতে ১০ থেকে ১২ ভাগ উৎপাদনও বেড়ে যায়। তাই এ বিষয়ে কৃষকদের সচেতন করে তুলতে হবে।

রোববার রাজধানীর খামারবাড়ি কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন মিলনায়তন চত্বরে কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতর (ডিএই) আয়োজিত তিন দিনব্যাপী ‘মৌ মেলা-২০১৬’ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু।

`মিলবে পুষ্টি বাড়বে ফলন, আয় বাড়াবে মৌ পালন` এ স্লোগান নিয়ে আয়োজিত মৌ মেলা চলবে ১ মার্চ পর্যন্ত। মেলা প্রতিদিন সকাল ১০টা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত সবার জন্য উন্মুক্ত থাকবে।

বাংলাদেশের আবহাওয়া মৌ চাষের জন্য বিশেষ উপযোগী উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে দেশে বছরে মাত্র চার হাজার মেট্রিক টন মধু উৎপাদিত হয়। কিন্তু বিশেষজ্ঞদের মতে, উন্নত প্রযুক্তি ও মৌ চাষির সংখ্যা বাড়ালে বছরে এক লাখ মেট্রিক টন মধু উৎপাদন সম্ভব। এটি করতে পারলে দেশের চাহিদা মিটিয়ে বিদেশেও মধু রফতানি করা যাবে।

তিনি আরো বলেন, সরকার এ খাতের উন্নয়নে ২০১২-১৭ মেয়াদে ৯ কোটি ৩৬ লাখ টাকা ব্যয়ে একটি প্রকল্প গ্রহণ করেছে। প্রকল্পের আওতায় এখন পর্যন্ত ৪ হাজার ৩৭০ জন মৌচাষিকে প্রশিক্ষিত করা হয়েছে। পাশাপাশি মৌচাষিদের বিসিক থেকে সহজ শর্তে ৯% সরল সুদে ঋণ দেওয়া হচ্ছে। তাদের উৎপাদিত মধু বিপণনের জন্য বিসিক বিভিন্ন সময় মেলার আয়োজন করছে।

কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেন, শুধু রফতানি নয়, দেশের মানুষের চাহিদার কথাও ভাবতে হবে। এ কারণে মৌ চাষ বৃদ্ধি করলে আমাদের মধুর চাহিদা পূরণ সম্ভব।

কৃষি মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব আনোয়ার ফারুকের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন- বাংলাদেশ অ্যাগ্রো প্রসেসরস অ্যাসোসিয়েশনের উপদেষ্টা এ এস এম ফখরুল ইসলাম মুন্সী, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য ও সংসদ সদস্য আব্দুল মান্নান, জাতীয় মৌ চাষ কল্যাণ সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. এবাদুল্লাহ আফজাল প্রমুখ।

হটনিউজ২৪বিডি.কম/এআর