খুলনা জাতীয়

ডিজিএম ফোন ধরেন না, মিথ্যার আশ্রয়ে লাইম্যান

imagesমেহেরপুর প্রতিনিধি:মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুত সমিতির গাংনী জোনাল অফিসের ডিজিএম ফোন ধরেন না। যদিও ৫/৬ বার রিং বাজার পর ধরলেও না শুনে দেখছি বলে শেষ, উনি কি দেখবেন আর কি করবেন তা বোঝা বেশ মুশকিল। শনিবার রাত ৯টা ২০ মিনিটে গাংনীর ৪ নং ফিডারে লোডশেডিং শুরু করে কর্তৃপক্ষ। ঠিক দুই ঘন্টা পর বিদ্যুৎ না আসায় প্রথমে গাংনী জোনাল অফিসের কন্ট্রোল রুমে ফোন দিয়ে বিদ্যুতের কি অবস্থা বা কখন আসবে জানতে চাইলে কর্তব্যরত লাইনম্যান ফিরোজ হোসেন জানান, বিদ্যুৎ আছে লোডশেডিং চলছে সাড়ে ১১টায় পাবেন। এর পর অপেক্ষা সাড়ে ১১টার পরও বিদ্যুৎ না আসায় আবারও ফোন দেওয়া হয় কন্ট্রেলারুমে এবারে আর ফোন রিসিভ হয় না তো হয় না। এর পর যোগাযোগের চেষ্টা করা হল জোনাল অফিসের ডিজিএম শৈলেন্দ্র নাথ পাল এর সাথে না তিনিও ফোন ধরলেন না। এক প্রকার বাধ্য হয়ে ফোন না ধরার বিষয়টি জানানো হলো মেহেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার কে। তিনি জানালেন ফোন না ধরার তো কোন কারণ নেই । ঠিক আছে বিষয়টি খোজ নিয়ে দেখছি। অবশেষে সাড়ে ১১ টার বিদ্যুৎ আসল ১১ট ৪৫ মিনিটে। এবারে আবারো যোগাযোগ করা হলে লাইনম্যান ফিরোজ বলেন, ৩৩ কেভি বন্ধ ছিল তো তাই দিতে পারিনি তাহলে মিথ্যা বলার কি ছিল এমন প্রশ্ন করলে তিনি কোন উত্তর দেন নি। সরকারের বিভিন্ন দায়িত্বে থাকা কর্তাব্যাক্তিরা দেশে বিদ্যুৎ উৎপাদন ব্যাপক হয়েছে বলে দাবী করলেও সরকারের ভাবমুর্তি নষ্ট করতে এমন ডিজিএম আর লাইনম্যান যথেষ্ট বলে ধারনা করেন ভুক্তভোগী গ্রাহকরা।