খেলা প্রধান খবর

যুবাদের বিশ্বকাপে বাংলাদেশ তৃতীয়

৩৩.ক্রীড়া ডেস্ক , হটনিউজ২৪বিডি.কম ১৩ ফেব্রুয়ারি : অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে হারিয়েছে স্বাগতিক বাংলাদেশ। এর ফলে প্রথমবারের মতো এই আসরে তৃতীয় স্থান দখল করলো মিরাজ-শান্তদের বাংলাদেশ।

লঙ্কানদের ছুড়ে দেয়া ২১৫ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে শুরুতে হোচট খেলেও শেষ পর্যন্ত সামলে নেয় বাংলাদেশেরে যুবারা। ১ রানে ১ উইকেট হারানো দলটি ৪৯.৩ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে পৌছে যায় লক্ষ্যে। দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৫৩ (৬৬) রান করেন মেহদি হাসান মিরাজ। নাজমুল হোসেন শান্ত ও শফিউল হায়াতের সঙ্গে জুটি বাঁধেন তিনি। অন্যদিকে লঙ্কানদের পক্ষে সর্বোচ্চ ২ উইকেট শিকার করেন সাম্মু আসান।

এর আগে ফতুল্লার খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামে আগে টস জিতে ব্যাটিং নেয় লঙ্কানরা। ফিল্ডিংয়ে নেমে ১২তম ওভারে এসে বাংলাদেশ প্রথম উইকেটের দেখা পায়। মেহেদি হাসান মিরাজ ফিরিয়ে দেন লঙ্কান ওপেনার সালিন্দু পেরেইরাকে। মেহেদির দারুণ এক ঘূর্ণিতে বলের লাইন মিস করলে লঙ্কান এই ওপেনারকে স্ট্যাম্পিংয়ের ফাঁদে ফেলেন জাকের আলি। আউট হওয়ার আগে পেরেইরা করেন ৩৪ রান। ১২তম ওভারে লঙ্কান ওপেনার পেরেইরাকে ফিরিয়ে দিয়ে মাঝে এক ওভার বিরতির পর আবারো বোলিং আক্রমণে এসে মেহেদি হাসান মিরাজ তুলে নেন লঙ্কানদের আরেক ওপেনার কামিন্দু মেন্ডিসকে। মেহেদির বলে এলবির ফাঁদে পড়ার আগে মেন্ডিস ৩১ বলে করেন ২৬ রান।

টাইগার যুবাদের দলপতি মেহেদি হাসান মিরাজের দুর্দান্ত স্পিনে লঙ্কানদের প্রথম তিন টপঅর্ডার ব্যাটসম্যান সাজঘরে ফেরেন। ১৮তম ওভারে মেহেদি ফিরিয়ে দেন আভিস্কা ফার্নান্দোকে। উইকেটের পেছনে দাঁড়ানো জাকের আলির গ্লাভসবন্দি হয়ে বিদায়ের আগে তিনি ৬ রান করেন। ইনিংসের ২৭তম ওভারে এসে টাইগার যুবারা চতুর্থ উইকেটের দেখা পায়। মেহেদি হাসান রানার বলে উইকেটের পেছনে জাকের আলির গ্লাভসবন্দি হয়ে ফেরেন সামু আসান। বিদায়ের আগে এ লঙ্কান ৩২ বলে চারটি চার আর একটি ছক্কায় করেন ২৭ রান। লঙ্কানদের হয়ে ১০ রান করা ভিসাদ রান্দিকাকে এলবির ফাঁদে ফেলে সাজঘরের পথ ধরান সালেহ আহমেদ শাওন। দলীয় ১৩১ রানের মাথায় শ্রীলঙ্কা তাদের পঞ্চম ব্যাটসম্যানকে হারায়।

দলীয় ১৩১ রানের মাথায় পঞ্চম উইকেট হারানো লঙ্কানদের স্কোরবোর্ডে রানের চাকা সচল রাখা হাসারাঙ্গাকে ৪৪তম ওভারে বোল্ড করেন সাইফুদ্দিন। আউট হওয়ার আগে তিনি ৩০ রান করেন। একই ওভারের পরের বলে ড্যানিয়েলকেও বোল্ড করেন সাইফুদ্দিন। তবে, হ্যাটট্রিকের দেখা পাননি এই পেসার। পরের ওভারে রান আউট হন দামিথা সিলভা। ৪৯তম ওভারে আবদুল হালিম ফেরান লঙ্কান দলপতি চারিথ আসালঙ্কাকে। জাকির হাসানের তালুবন্দি হওয়ার আগে তিনি ৯৯ বলে ৬টি চার আর একটি ছক্কার সাহায্যে ৭৬ রান করেন। এক বল বাদেই কুমারাকে (৩) ফিরিয়ে শ্রীলঙ্কার ইনিংস গুটিয়ে দেন হালিম।

এই ম্যাচে জয়ের মাধ্যমে যুবা বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সেরা পারফর্মেন্স হয়ে রইল এটি।

হটনিউজ২৪বিডি.কম/এআর