রাজনীতি রাজশাহী

বর্তমান সরকারের অধিনেই তিনশ’ আসনে প্রার্থী দেয়ার ঘোষণা

images (1) মোঃ মাহফুজ আলম মুনী, নাটোর থেকে:নাটোরে বিএনএফ নামে নতুন একটি রাজনৈতিক দলের শাখা গঠনের পাঁয়তারায় ‘ওয়ান ম্যান শো’ করা হয়েছে। বর্তমান সরকারের অধিনেই তিনশ’ আসনে প্রার্থী দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন বাংলাদেশ ন্যাশনালিষ্ট ফ্রন্ট (বিএনএফ) নাটোর জেলা কমিটির এর স্বঘোষিত আহবায়ক ও দেশনেত্রী ফোরামের সাবেক চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শহিদ চৌধুরী। শনিবার নাটোর প্রেসক্লাব মিলনায়তনে দলের প্রথম সুধী সমাবেশ ও মত বিনিময় সভায় শহিদ চৌধুরী একাই অনুষ্ঠান উপস্থাপনা, বক্তব্য প্রদান ও সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তর দেন। এর আগে তিনি একাই দাওয়াতপত্রও বিলি করেছেন। সুধী সমাবেশে শহিদ চৌধুরী জানান, অনেক আগেই তিনি নাটোর জেলা কমিটির আহবায়ক এবং দেলোয়ার হোসেন সদস্য সচিব হয়েছেন। বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদ, জনগণের গণতন্ত্র, ইসলামী আদর্শ এবং সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি সহ জাতীয় ঐক্যের ভিত্তি, ন্যায় বিচার প্রতিষ্ঠা, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা, রাজনৈতিক ক্ষমতা বিকেন্দ্রীকরণ এবং মুক্তিযোদ্ধাদের উন্নয়ন করাই তাদের দলের লক্ষ্য এবং শহীদ জিয়াউর রহমানের ১৯ দফা বাস্তবায়ন করার লক্ষ্য নিয়ে তারা শহিদ জিয়াউর রহমানের ছবি আর দলের প্রতীক হিসেবে ধানের গাছ ব্যবহার করছেন। সাংবাদিকদের তিনি জানান, বড় দুই রাজনৈতিক দলের দ্বন্দ্ব আর হানাহানি থেকে দেশের সাধারণ জনগণ পরিবর্তন চায় বলেই তারা এই নতুন দল বিএনএফ গঠন করেছেন। আগামী নির্বাচনে তত্ত্বাবধায়ক বা র্নিদলীয় সরকার না হলেও তারা বর্তমান সরকারের অধিনেই তিনশ’ আসনে নির্বাচন করবেন বলে জানান। অন্য আর এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, শহীদ জিয়াউর রহমানই প্রথম এই বিএনএফ গঠন করেন এবং তারপরে তিনি বিএনপি করেন। তিনি আরো বলেন, বিএনপির সাবেক মন্ত্রী ব্যারিষ্টার নাজমুল হুদাকে এই দল গঠনের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিল কিন্তু তিনি ব্যর্থ হওয়ায় তাকে দল থেকে বহিস্কার করা হয়েছে এবং এর পর থেকে দলের কেন্দ্রীয় কমিটির বর্তমান আহবায়কের দায়িত্ব পালন করছেন বিএনপি সরকারের প্রথম মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রী অধ্যাপিকা জাহানারা বেগম। সুধী সমাবেশ ও মতবিনিময় সভার মঞ্চে উপস্থিত অ্যাডভোকেট সিদ্দিকুর রহমান চৌধুরী, আজহার আলী চৌধুরী এবং আখতার খান চৌধুরীর একজনও এই নতুন দল বিএনএফ এর নেতা বা সদস্য নন। শহিদ চৌধুরীর পরিচিতজন হিসেবে তাদের সমাবেশে ডাকা হয়েছে বলেই তারা সেখানে এসেছেন মাত্র। সমাবেশের দাওয়াতকারী জেলা শাখার সদস্য সচিব দেলোয়ার হোসেন নিজেও সভায় উপস্থিত হননি এমনকি দাওয়াতপত্র বিলি করার সময়ও তাকে দেখা যায়নি। সুধী সমাবেশের কথা বলা হলেও সভায় সাংবাদিক এবং তার নিজস্ব কয়েক ব্যক্তি ও গোয়েন্দা সংস্থার লোক ছাড়া সেখানে আর কেউ ছিলেন না। ঢাকায় বসবাসরত ব্যবসায়ী শহিদ চৌধুরী আগামী সংসদ নির্বাচনে নিজে বড়াইগ্রাম-গুরুদাসপুর নিয়ে গঠিত নাটোর-৪ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করবেন বল জানান। নতুন এই দল গঠনে অনেকেই তাকে হুমকি দিয়েছেন জানিয়ে দ্রুত সভার কাজ শেষ করে সেখান থেকে চলে যান।