প্রধান খবর

সময় বাড়লো ৪ মাস

souরিয়াদ: সৌদি আরবে অবৈধভাবে বসবাসরত প্রবাসীদের বৈধতায় মেয়াদ আরো চারমাস বাড়ানো হয়েছে। সৌদি বাদশাহ আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদের দেওয়া বিশেষ ক্ষমায় এই মেয়াদ চার মাস বাড়ানো হলো।

বর্ধিত নতুন এই সময় অনুযায়ী আগামী ৪ নভেম্বর পর্যন্ত অবৈধ প্রবাসীরা বৈধ হতে পারবেন, কোনো ধরনের শাস্তি বা জরিমানা ছাড়াই।

মঙ্গলবার দেশটির রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা সৌদি প্রেস এজেন্সি বিষয়টি নিশ্চিত করেছে। সৌদিতে প্রবাসীদের বৈধ হওয়ার মেয়াদ শেষ হওয়ার মাত্র দুইদিন আগে এ সিদ্ধান্ত আসলো।

বর্ধিত এই সময়ের পর সৌদি শ্রম এবং স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় দেশটির বিভিন্ন রাজ্যে অবৈধ শ্রমিকদের গ্রেফতারে যৌথ অভিযান পরিচালনা করবে বলেও বিবৃতিতে জানানো হয়।

এ বিষয়ে স্বরাষ্ট্র এবং শ্রম মন্ত্রণালয় থেকে সব অবৈধ প্রবাসীদের দ্রুত বৈধ হওয়ার জন্য আহ্বান জানানো হয়।যারা নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বৈধ না হবে তাদের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ ব্যবস্থা নেওয়ার কথাও বলা হয়।
এছাড়া বিবৃতিতে প্রবাসীদের বৈধকরণে সংশ্লিষ্ট দূতাবাস ও ব্যক্তিদের সাহায্য করারও আহ্বান জানানো হয়।

সৌদি আরবে অবৈধভভাবে বসবাসকারীদের মধ্যে বেশিরভাগ ভারত, পাকিস্তান, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া, শ্রীলঙ্কা, বাংলাদেশ, মিশর, নেপাল এবং ইয়েমেনের নাগরিক।

এর আগে সৌদি আরবে অবৈধভাবে বসবাসরত বিদেশি শ্রমিকদের কোনো ধরনের শাস্তি ও জরিমানা ছাড়াই বৈধ হতে ৩ জুলাই পর্যন্ত বিশেষ ক্ষমা ঘোষণা করেন সৌদি বাদশাহ আব্দুল্লাহ বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ। এ সময়ের মধ্যে বৈধ হতে না পারলে প্রত্যেককে ২ বছরের জেল এবং এক লাখ সৌদি রিয়াল জরিমানার বিধান করা হয়।

তবে বিভিন্ন জটিলতার কারণে নির্দিষ্ট সময়ে অনেকেই বৈধ হতে না পারায় সৌদি বাদশাহর কাছে বৈধকরণের মেয়াদ বাড়ানোর অনুরোধ জানানো হয়।

দেশটির শ্রম মন্ত্রণালয়ের পাশাপাশি বিশাল সংখ্যক অবৈধ প্রবাসীর কথা চিন্তা করে বৈধ হওয়ার সময় বাড়ানোর বিষয়টি বিবেচনার আহ্বান জানান বাংলাদেশ, পাকিস্তান, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ফিলিপাইন ও নেপালের রাষ্ট্রদূতরা।

এছাড়া সময় বাড়াতে সৌদি বাদশাহকে বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর চিঠি সৌদি পররাষ্ট্রমন্ত্রীর কাছে হস্তান্তর করেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডা. দীপু মনি। ভারত, পাকিস্তান, ফিলিপাইনসহ বেশ কয়েকটি দেশের উচ্চপর্যায়ের প্রতিনিধিরা সময় বাড়াতে সৌদি বাদশাহকে অনুরোধ করেন।

সৌদি চেম্বারস কাউন্সিলের চেয়ারম্যান ফাহাদ আল হামাদি বলেন, আমরা প্রত্যেকেই এ প্রস্তাবকে সমর্থন করি। তবে শুধু তিন মাসের জন্য এ ক্ষমা পর্যাপ্ত নয়।

প্রবাসীদের জন্য সাধারণ ক্ষমার মেয়াদ আরও তিন মাস বাড়ানো হলে তাদের জন্য বিষয়টি সহায়ক হবে বলেও মত দেন হামাদি।

মদিনা চেম্বার অব কর্মাস অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির কর্মকর্তা আব্দুল গনি আল আনসারি জানান, সৌদি বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের নিয়মনীতি উপেক্ষা করে দেশটিতে এই মুহূর্তে প্রায় সাত লাখ ব্যবসায়ী তাদের কার্যক্রম পরিচালনা করছেন।

আতিকুর রহমান, হটনিউজ২৪বিডি.কম