খেলা

কনফেডারেশনস কাপ: চতুর্থ বারের মত শিরোপা জিতলো ব্রাজিল

braআতিকুর রহমান: চতুর্থ বারের মত কনফেডারেশনস কাপের শিরোপা জিতলো ব্রাজিল। ফাইনালে স্পেনকে ৩-০ গোলে হারায় সেলেকাওরা। জোড়া গোল করেছেন ফ্রেড আর একটি গোল এসেছে নেইমারের পা থেকে। বিশ্ব ফুটবলের এই একটি ট্রফি অধরাই থেকে গেলো বিশ্বচ্যাম্পিয়ন স্পেনের।
ফাইনালে ব্রাজিলের সামনে জেতার জন্য শুধু একটা ফুটবল ম্যাচই ছিলো না, জয় করার অপেক্ষায় ছিলো ক্রোধে ও ক্ষোভে ফুঁসতে থাকা প্রায় বিশ কোটি ব্রাজিলিয়ানের হৃদয়ও।
কাওজটা করার জন্য মারাকানার চেয়ে উপযুক্ত ভেন্যু আর চাইতে পারতো না সেলেকাওরা। প্রায় ৭৫ হাজার দর্শকের সামনে বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের নিশ্চিহ্ন করে দিয়ে শিরোপা জিতে নিলো ব্রাজিল।
এমন তান্ডবের শুরুটা হয় শুরু থেকে মারাকানা নড়েচড়ে বোঝার আগেই ফ্রেডের লক্ষ্যভেদ। তখনও বোঝা যাচ্ছিলো না কি অপেক্ষা করছে সর্বজয়ী ভিসেন্তে দেল বস্কের দলের জন্য। (২)
থিতু হয়ে স্পেন চেষ্টা চালালো আক্রমনের ইনিয়েস্তা প্রথমবারের মত ব্যস্ত রাখলেন জুলিও সেজারকে। (১৯)
বিরতির আগ দিয়ে আবারও এলোমেলো লা ফুরিয়া রোহা। অস্কারের পাস থেকে এবারে লিড দ্বিগুন করলেন নেইমার। (৪৪)
দুশ্চিন্তাগ্রস্থ দেল বস্কেকে হতভম্ব বানিয়ে দিলেন ফ্রেড টানেল থেকে ফেরার দু’মিনিটের মাথায় স্কোরলাইনটা দাড়ালো পুরো ফুটবল বিশ্বের চোখ কপালে তুলে দেয়ার মত।
হার এড়ানো নয়, বিশ্ব ও ইউরো চ্যাম্পিয়নরা এরপর থেকে সুযোগ খুঁজে বেড়ালো কি করে লজ্জার ভার কমানো যায়। সু্যোগ একটা পেয়েছিলেন সার্হিও রামোস কিন্তু কাজে লাগাতে পারলেন না। পেনাল্টি হাতছাড়া করে বসলেন এই অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার। (৫৪)
ব্যাস! স্পেনের আপ্রান প্রচেষ্টা ঐ-ই ছিলো সবশেষ পিকের লাল কার্ড আরও নাজুক বানিয়ে দেয় পরিস্থিতি। (৬৮) বাকি সময়টুকু ম্যাচ শেষের অপেক্ষায় কাটালো স্প্যানিয়ার্ডরা আর ব্রাজিলের অপেক্ষাটা তখন পার্টি শুরুর।
শুরুও হলো তাদের কার্নিভ্যাল। পুরো একটা দেশ যেনো হাঁপ ছাড়লো প্রায় একমাস পর আবারও সোনালী সূর্যের দেশে হাসলো দ্য বিউটিফুল গেইম। আর সর্বজয়ী স্প্যানিশদের জন্য ব্রাজিল হয়ে এখনো হয়ে রইলো দ্য ফাইনাল ফ্রন্টিয়ার। যা জয় করতে তাদের অপেক্ষায় থাকতে হবে আরও এক বছর।