জাতীয়

ডিসেম্বর পর্যন্ত মোটরসাইকেল নিবন্ধনে বিশেষ সুযোগ, কমছে নিবন্ধন ফি

ডিসেম্বর পর্যন্ত মোটরসাইকেল নিবন্ধনে বিশেষ সুযোগ, কমছে নিবন্ধন ফি
ডিসেম্বর পর্যন্ত মোটরসাইকেল নিবন্ধনে বিশেষ সুযোগ, কমছে নিবন্ধন ফি

ঢাকা, ০৩ নভেম্বর ২০১৫, নিরাপদনিউজ : আগামী জানুয়ারি থেকে নিবন্ধনহীন মোটরসাইকেল চলাচলে কড়াকড়ি আরোপ করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআরটিএ)। এজন্য আসছে ডিসেম্বর পর্যন্ত বিআরটিএ মোটরসাইকেল নিবন্ধনে বিশেষ সুযোগ দিতে চায়।
বিশেষ সুবিধা দিয়ে দেশের সব মোটরসাইকেল নিবন্ধনের আওতায় আনতে ২০১৪ সালে বৃদ্ধি করা ৪০ শতাংশ ফি বন্ধ রাখার প্রস্তাব করেছে বিআরটিএ। তবে অন্যান্য চার্জ অপরিবর্তিত থাকবে বলেও জানা গেছে।
বিআরটিএ’র পক্ষ থেকে অর্থ মন্ত্রণালয়ে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে মধ্য অক্টোবরে, যদিও এখনো তার কোনো জবাব পায়নি বিআরটিএ।
বিআরটিএ’র প্রস্তাবে বলা হয়েছে, ৫১ সিসি থেকে ১০০ সিসি মোটরসাইকেলের নিবন্ধন ফি ৪২০০ টাকা থেকে কমিয়ে ২৫২০ টাকা করা। এছাড়া ১০১ সিসি থেকে ১৫০ সিসি মোটরসাইকেল ৫৬০০ টাকা থেকে কমিয়ে ৩৩৬০ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
বিআরটিএ’র তথ্যমতে, মোটরসাইকেল নিবন্ধন ফি’র সঙ্গে ৯০ কেজি পর্যন্ত প্রতিটির জন্য গুণতে হবে ট্যাক্স বাবদ ৫ হাজার টাকা। এর সঙ্গে ডিজিটাল নম্বর প্লেট ফি ২২৬০ টাকা, ডিজিটাল নিবন্ধন ফি ৫৫৫ টাকা। দশ বছরের জন্য এ ফি নির্ধারণ করা হয়েছে। অর্থাৎ প্রতিটি মোটরসাইকেল নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় খরচ হবে ১০ হাজার ৩৩৫ টাকা।
মোটরসাইকেলের ওজন ৯০ কেজির বেশি হলে ট্যাক্স বাবদ কাটা হবে ১০ হাজার টাকা। অর্থাৎ ৯০ কেজির ঊর্ধ্বে একটি মোটরসাইকেল নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় মোট খরচ হবে ২০ হাজার ৩৩৫ টাকা। ৫১-১০০ সিসির ক্ষেত্রে এ হিসাব প্রযোজ্য হবে।
(১০১-১৫০ সিসি) একটি মোটরসাইকেল নিবন্ধন প্রক্রিয়ায় যাবে ৯০ কেজি পর্যন্ত ১১ হাজার ১৭৫ টাকা। ওজন ৯০ কেজির বেশি হলে খরচ হবে ২১ হাজার ১৭৫ টাকা।
২০১৪ সালের ১ জানুয়ারি মোটরসাইকেল নিবন্ধন ফি ৪০ শতাংশ বাড়িয়ে করা হয়েছিল ৪২০০ ও ৫৬০০ টাকা।
এর আগে গত ২৯ অক্টোবর সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের রাজধানীতে একটি অনুষ্ঠানে জানিয়েছিলেন, মোটরসাইকেল নিবন্ধন ফি কমানোর কাজ চলছে। এ নিয়ে কাজ শুরু করে দিয়েছেন সচিব।
মন্ত্রীর এ কথার ভিত্তি ধরেই যোগাযোগ করা হয় সড়ক সচিব এম এন ছিদ্দিকের সঙ্গে। তিনি বাংলানিউজকে জানান, আমাদের কাছে মোটরসাইকেল চালক ও সংসদীয় কমিটির পক্ষ থেকে নিবন্ধন ফি কমানোর সুপারিশ এসেছে। সে সুপারিশের আলোকে মধ্য অক্টোবরে সব ড্রাফট করে অর্থ মন্ত্রণালয়ে পাঠিয়েছি। তবে সেখান থেকে এখনো কোনো জবাব পাওয়া যায়নি। অর্থ মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন পেলে ডিসেম্বর পর্যন্ত বর্ধিত ৪০ শতাংশ নিবন্ধন ফি বন্ধ রাখা হবে। এ সুযোগ ডিসেম্বরের পর আর থাকবে না।
মোটরসাইকেল নিবন্ধন ফি ছাড়া অন্যান্য চার্জ অপরিবর্তিত থাকবে বলেও জানান সচিব ।
মোটরসাইকেল নিবন্ধন ফি কমানো প্রসঙ্গে বিআরটিএ’র সহকারী পরিচালক শামসুল কবীর বাংলানিউজকে বলেন, আমাদের কাছে প্রস্তাব এসেছে, নিবন্ধন ফি যৌক্তিক হারে কমানোর। তবে শুধু নিবন্ধন ফি নাকি অন্যান্য চার্জও কমবে তা স্পষ্ট করা হয়নি। যতটুক জানি, নিবন্ধন ফি’ই কমবে।
তিনি বলেন, বর্তমানে ৫১-১০০ সিসি মোটরসাইকেলের নিবন্ধন ফি ৪২০০ টাকা থেকে কমিয়ে ২৫২০ টাকা এবং ১০১-১৫০ সিসি মোটরসাইকেল ৫৬০০ টাকা থেকে কমিয়ে ৩৩৬০ টাকা করার প্রস্তাব করা হয়েছে।
সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির পক্ষ থেকে গত ৩০ সেপ্টেম্বর মোটরসাইকেল নিবন্ধন ফি ৪০ শতাংশ কমানোর সুপারিশ করা হয়েছিল।